দ্রুতগতিতে ওয়েব ব্রাউজ করতে কিবোর্ড এর শিফট Shift বাটনের অত্যাশ্চর্য কিছু ব্যবহার!

————————–— بِسْمِ اللَّهِ الرَّحْمَٰنِ الرَّحِيمِ ————————–—

সুপ্রিয় টেকটিউনস কমিউনিটি, সবাইকে আন্তরিক সালাম এবং শুভেচ্ছা জানিয়ে শুরু করছি দ্রুতগতিতে ওয়েব ব্রাউজ করার জন্য কম্পিউটার কিবোর্ড এর শিফট বাটনের বিশেষ কিছু ব্যবহার সম্পর্কিত আমার আজকের টিউন।

➡ কম্পিউটারে ওয়েব সাইট ব্রাউজ করার জন্য ইন্টারনেট কানেকশনের পরেই যেটা লাগে সেটা হলো ওয়েব ব্রাউজার। তবে ইন্টারনেট কানেকশন ছাড়াও কিন্তু অফলাইনে ওয়েব সাইট ভিজিট করা যায়। তাহলে বুঝতেই পারছেন কম্পিউটারে ওয়েব ব্রাউজারের গুরুত্ব কতোটুকু। আপনি যদি ইন্টারনেট ব্রাউজ করার ক্ষেত্রে নিজেকে এক্সপার্ট প্রমাণ করতে চান তাহলে আপনার প্রথমেই যেটা দরকার সেটা হলো ইন্টারনেট ব্রাউজারের উপর পূর্ণ দখল তৈরি করা।

আর এ জন্য ব্রাউজারের যাবতীয় শর্টকাট বিষয়ে ওয়াকেবহাল থাকতে হবে। কিন্তু সাধারনত মাউসের ক্লিক করে অভ্যস্ত কম্পিউটার ব্যবহারকারীরা ব্রাউজার শর্টকাটের উপর খুব কমই নজর দিয়ে থাকেন। কিন্তু দ্রুত ইন্টারনেট ব্রাউজ করার ক্ষেত্রে ব্রাউজারের শর্টকাটগুলোকে অবজ্ঞা করা অনুচিত। আজকের টিউনে আমরা দেখবো কম্পিউটার কিবোর্ডে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ শিফট বাটন এর বিশেষ ব্যবহার সম্পর্কে। এক্সপার্টরা হয়তো টিপসগুলো জানেন কিন্তু নতুনদের জন্য টিউনটি উপকারে আশাকরি।

আনুভুমিক স্ক্রলিং – Horizontal Scrolling

অনেক ওয়েব সাইট আছে যেখানে আইফ্রেম* (iframe), টেক্সট বক্স, ওয়াইড স্ক্রিণ এবং আনরেসপন্সিভ ওয়েব টেমপ্লেট ব্যবহার করা হয়। এছাড়াও অনেক বিশাল আকারের ইমেজ আছে সেগুলো জুম করলে ওয়েব পেইজ ওভারফ্লো হয়ে যায়। এক্ষেত্রে আপনারা নিশ্চয় ব্রাউজারের নিচের দিকে আনুভুমিক স্ক্রলবার মাউস দ্বারা ডানে বামে টেনে টেনে সম্পূর্ণ ওয়েব কন্টেন্ট দেখেন?

কম্পিউটার ব্রাউজারে মাউসের অত্যধিক ব্যবহার কমানোর জন্য রয়েছে সিম্পল একটা শর্টকাট। এক্ষেত্রে কিবোর্ড এর শিফট বাটনটি চেপে ধরুন এবং সাধারন পেইজ ক্রলিং এর জন্য যেভাবে মাউসের স্ক্রল হুয়িল ব্যবহার করেন সেভাবে হুয়িলটি ঘুরান। দেখবেন খুব সুন্দর ভাবে ওয়েব পেইজটি আনুভুমিকভাবে স্ক্রল করছে।

ব্রাউজারের নিচের দিকের স্ক্রলবার মাউস দিয়ে টেনে ডানে বামে মুভ করাতে হয়

যদি ওয়েব পেইজে কোন আনুভুমিক স্ক্রলবার না এসে থাকে তাহলে এই পদ্ধতিতে আপনি অন্য কাজ করতে পারবেন। যেমন ধরুন আপনি একই ট্যাবে অনেকগুলো ওয়েব সাইট ভিজিট করেছেন। এমন অবস্থায় আপনি যদি শিফট বাটন চেপে ধরে মাউসের স্ক্রল হুয়িল ঘুরান তাহলে আগে ভিজিট করা ওয়েব পেইজগুলো একে একে চলে আশাকরি।

* আইফ্রেম (iframe) - একটি ওয়েব সাইটের মধ্যে অন্য একটি ওয়েব সাইট কিংবা ওয়েব কন্টেন্ট কে প্রদর্শন করার ওয়েব ফ্রেইম।

সর্বশেষ বন্ধ করা ট্যাবকে আবার ফিরিয়ে আনুন

আপনি হয়তো ব্রাউজারে অনেকগুলো ট্যাব খুলে রেখেছেন। গুরুত্বপূর্ণ ওয়েব পেইজগুলো হয়তো ভবিষ্যতে পড়ার জন্য সেইভ করে রাখতে চান। তাছাড়া মাল্টি টাস্কিংও হয়তো করছেন ব্রাউজারে একের অধিক ট্যাব খুলা রেখে। কিন্তু হঠাৎ ভুল বশত অনেকগুলো ট্যাব থেকে একটা ট্যাব ক্লোজ হয়ে গেলো! এতোগুলো ট্যাব এর মধ্যে কোন ট্যাবটি ক্লোজ হয়ে গেছে এটা খুঁজে বের করবেন কীভাবে? আমার নিজেরই মাঝে মাঝে এই সমস্যায় পড়তে হয়। একটু ভেবে বলুন তো এমন অবস্থায় আপনি কি করবেন? মেজাজ খারাপ করে বসে থাকবেন নিশ্চয়?

কিন্তু প্রত্যেক ওয়েব ব্রাউজারেই আপনার প্রয়োজনের কথা ভেবে সর্বশেষ বন্ধ হয়ে যাওয়া ট্যাবটি ফিরিয়ে আনার জন্য বিশেষ ব্যবস্থা রয়েছে। এরকম হলে আপনাকে শুধুমাত্র কিবোর্ড থেকে Shift + Ctrl + T চাপতে হবে। দেখবেন মূহুর্তের মধ্যে আপনার বন্ধ হয়ে যাওয়া ট্যাবটি যথাস্থানে ফিরে এসেছে। দেখলেন, কতো সহজেই সমস্যার সমাধান হয়ে গেলো!

ওয়েব পেইজ আপ এন্ড ডাউন স্ক্রলিং

একটা ওয়েব পেইজকে উপর থেকে নিচের দিকে পড়ার সময় খুব কম মানুষই আছে যারা কিবোর্ড কমান্ড ব্যবহার করে। সবাই মোটামুটি ভাবে মাউসের স্ক্রলবাটন কিংবা এরোও বাটন ব্যবহার করে থাকে। কিন্তু মাউসের স্ক্রল বাটন কিংবা এরোও বাটন ব্যবহারের ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় অংশের চাইতে মাঝে মাঝে বেশি স্ক্রল হয়ে যায়। এ জন্য উপর থেকে নিচে স্ক্রল করার জন্য সবচেয়ে স্ট্যান্ডার্ড অপশন হলো কিবোর্ড এর স্পেইসবার ব্যবহার করা। এক্ষেত্রে শুধুমাত্র দৃশ্যমান অংশটুকু স্ক্রল হবে। অনাকাঙ্খিত ভাবে একবারে বেশি কন্টেন্ট স্ক্রল হওয়ার কোন সম্ভাবনা নেই।

উপর থেকে নিচের দিকে স্ক্রল করার জন্য স্পেইসবার ব্যবহার করলেও যখন নিচ থেকে উপরের দিকে স্ক্রল করবেন তখন কিবোর্ড এর শিফট বাটন চেপে ধরে স্পেইসবার চাপলেই উলম্ব দিকে স্ক্রলিং হবে। এটা ছাড়াও কিবোর্ড এর ডানপাশে অবস্থিত Pg Up এবং Pg Dn বাটন ব্যবহার করে উপরে নিচে স্ক্রলিং করা যায়।

সবগুলো ট্যাব একসাথে বন্ধ করা

যদি কখনো ব্রাউজারের সবগুলো ট্যাবকে একসাথে বন্ধ করার প্রয়োজন হয় তাহলে কিবোর্ড থেকে শুধু Ctrl + Shift + W বাটন চাপলেই সবগুলো ট্যাব বন্ধ হয়ে যাবে। তবে এই শর্টকাটটি শুধুমাত্র ব্রাউজারের ক্ষেত্রেই নয় বরং যে সমস্ত সফটওয়্যারে ট্যাব ব্যবহার করা যায় তার সবগুলোতেই কাজে লাগবে।

সবশেষে একটি সহজ টেকটিক বলে আলোচনা শেষ করবো। ধরুন আপনি একসাথে অনেক কাজ করছেন। ওয়েব ব্রাউজার, মিউজিক প্লেয়ার, অফিস সফটওয়্যার থেকে শুরু করে আরও অনেক কিছু চালু আছে কম্পিউটারে। এমন অবস্থায় অনাকাঙ্খিত কেউ সামনে চলে আসলো। আপনি তাকে দেখাতে চান না যে কী করছেন।

এই অবস্থায় একে একে সবগুলো প্রোগ্রাম মিনিমাইজ করারও তো কষ্টকর। কী করবেন এখন? চিন্তার কিছু নেই, কিবোর্ড থেকে উইন্ডোজ বাটন চেপে ধরে D বাটনটি চাপুন। ফলাফল কী হলো সেটা আমাকে না জানালেও চলবে। আপনি তো উপকৃত হয়েছেন এটাই অনেক।

ইন্টারনেট সার্ফি সম্পর্কে আরও টিপস জানতে দেখুন

শেষ কথা

টিউনটি যদি আপনাদের ভালো লেগে থাকে অথবা বুঝতে যদি কোন রকম সমস্যা হয় তাহলে আমাকে টিউমেন্টের মাধ্যমে জানাতে ভুলবেন না। কারন আপনাদের যেকোন মতামত আমাকে সংশোধিত হতে এবং আরো ভালো মানের টিউন করতে উৎসাহিত করবে।

আর টিউনটিকে মৌলিক মনে হলে এবং নির্বাচিত টিউন হওয়ার উপযুক্ত মনে হলে নির্বাচিত টিউন মনোনয়ন দিতে ভুলে যাবে না যেন। সর্বশেষ যে কথাটি বলবো, আশাকরি এবং অপরকেও কপি পেস্ট টিউন করতে নিরুৎসাহিত করি। সবার সর্বাঙ্গিন মঙ্গল কামনা করে আজ এখানেই শেষ করছি। দেখা হবে আগামী টিউনে।

আপনাদের জন্য » সানিম মাহবীর ফাহাদ

Level 7

আমি সানিম মাহবীর ফাহাদ। সুপ্রিম টিউনার, টেকটিউনস বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 8 বছর 3 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 172 টি টিউন ও 3503 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 137 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।

অন্য আর দশটা মানুষের মতোই একদিন এই পৃথিবীতে আসছিলাম। তারপর থেকে নিজের মতো করেই নিজের পৃথিবীতে বেঁচে আছি। এরপর একদিন টুপ করে জীবন্ত পৃথিবী থেকে ঝরে পড়বো। জীবনতো এটাই, তাই না?


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

Thanks for sharing…

অনেক ধন্যবাদ কাজের সব টিপস নিয়ে টিটির পর্দায় হাজির হবার জন্য ।২ নাম্বার টিপস টা জানা ছিল না এইটার জন্য এক্সট্রা ভাবে ৫ তা ধন্যবাদ ।

    হা হা হা, মজার টিউমেন্ট এর জন্য ধন্যবাদ রিদম দত্ত! তোমার টিউনগুলোকে মিস করি অনেক।

ফাহাদ ভাই ব্রাউজার থেকে পেজ উঠানো এবং নামানোর জন্য আমি কি বোর্ড এর Pageup & Page down এই দুটো বাটন ব্যবহার করি। যদি এই বিষয়টি না জানেন তালে একনই ট্রাই করে নিন।

    আপনি টিউনটি পড়েন নাই বলেই এই টিউমেন্ট করেছেন। টিউনে আমি এই বিষয়টাও উল্লেখ করেছি। ঐ টপিক্সের নিচের দিকে দেখেন।

অনেক সুন্দর ও দরকারি টিউন। ধন্যবাদ শেয়ার করার জন্য

খুব সুন্দর টিউন। ধন্যবাদ আপনাকে।

ভাই খুব সুন্দর হইছে আপনাকে অনেক ধন্যবাদ
http://tech-knowledge-bd.blogspot.com/

    আধুনিক স্প্যামিং মেথড! শুধু ওয়ার্নিং দেওয়ার জন্য ডিলেট করলাম না। নেক্সট এরকম দেখলে আপনার আইডি চান্দের দেশে চলে যাবে।

সুন্দর টিউন।

আবারো একটি সুন্দর টিউনের জন্য ধন্যবাদ।

@ ফাহাদ ভাই > টিউন পুরোটাই পড়েছি, তবে কি বোর্ড কমান্ড এর পার্থক্য রয়েছে, যেমন আপনি বলেছেন পেজ উঠানো এবং নামানোর জন্য

আপনি বলেছেন > Shift + Spaceber ব্যবহার করতে
আমি বলেছি > Pageup & Page down ব্যবহার করার কথা

পার্থক্য শুধূ এখানেই।

    আমি শিফট এবং স্পেইসবারের পাশাপাশি পেইজ আপ এবং পেইজ ডাউন বাটনের কথাও উল্লেখ করেছি টিউনে। নিচের স্ক্রিনশটটি দেখুন। তাহলেই বুঝতে পারবেন।

    http://prntscr.com/8r32xs

টেকটিউন – শিফট – ডিলিট = সানিম মাহবীর ফাহাদ

আশা করি হিসাবটা বুঝতে পেরেছেন ।

বরাবরের মতোই ভালো , [ ” কোনো নতুনত্ব নেই, একদিনতো খারাপ করুন ” ] মজা করলাম ।

কিছু মনে করবেন না দয়া করে ; ভালো থাকবেন। আর মাতিয়ে রাখুন আমাদের প্রযুক্তির সুরে ।

বিলম্বিত টিউমেন্ট কারার জন্য দুঃখিত। অনেক আগেই কারা উচিৎ ছিল ।

প্রত্যুত্তরের জন্য আগাম ধন্যবাদ রইলো ।

    একেবারে টেকটিউনস থেকে চিরদিনের জন্য ডিলিট করে দিলেন? এমনিতেই এখন আর আসা হয় না। তার উপরে এই অবস্থা! যাহোক, আপনার টিউমেন্ট পড়ে কিন্তু দারুন মজা পেলাম। পাশে থাকুন এভাবেই। ব্যস্ততার কারনে দেরীতে রিপ্লাই দিলাম। ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন প্লিজ।

আপনার টিউন মানেই নতুন কিছু , যদিও আজকের বিষয়গুলো জানাই ছিল তবুও ভালই লাগল । থাঙ্কস , এইভাবেই টিউন করতে থাকুন ।

    নতুন কিছু দেওয়ার প্রত্যয়টা যতোদিন থাকবে ততোদিন আপনাদের পাশেই আছি। আপনারা শুধু একটু পাশে থাকবেন। ধন্যবাদ 🙂

গুরুদেব আপনাকে সব সবময় টেকটিউনসে চাই ।