নিয়ে নিন চিরদিনের জন্য আইডিএম এবং ওয়িনরার লাইন্স কি । সাথে থাকছে আইডিএম ও ওয়িনরার এর থিমস ও টিপস।

আইডিএম

আইডিএম কি তা আমার সবাই জানি  আইডিএম মানি ইন্টারনেট ডাউনলোড ম্যানেজার ।  ইন্টারনেট থেকে কোন ফাইল দ্রত গতিতে নামতে  আইডিএম ব্যাবহার করা হয়  এবং এর কিছু বিশেষ ফিচার রয়েছে যার কারনে আমরা আইডিএম ব্যবহার করি। তবে এর কিছু সমস্যা ও রয়েছে  যেমন এইটি নেট থেকে টাইয়াল ভার্সন নামালে এর মেয়াদ থাকে মাত্র ১৫ দিন।আজকে আমি আপনাদের জানাবো কি ভাবে চিরদিন এর জন্য আইডিএম কে ফুল ভার্সন করবেন।

প্রথমে  নিচের ডাউনলোড ইমেজ এ ক্লিক করে আইডিএমটি  ডাউনলোড করে নিন।এর পর নিচের স্টেপ গুলো ফলও করুন।

সফটওয়ারটি ডাউনলোড করার পর এক্সট্র্যাক করা ফাইলটি ওপেন করুন নিচের মত একটি উইন্ডো দেকতে পারবেন ।আই খানে Setup নামক ফোল্ডার এ প্রবেশ করুন

এর পর সফটওয়্যারটিতে ক্লিক করুন

এর পর next next দিয়ে সফটওয়্যারটি ইন্সটল করুন।নিচের মত উইন্ডো আসলে ওকে বাটন এ ক্লিক করুন।

এর পর এই আইকনটিতে ক্লিক করুন ।

নিচের মত উইন্ডো আসবে ।

এইখানে About IDM এ ক্লিক করুন।দেখবেন আইডিএমটি  টাইয়াল

এর পর আইডিএমটি ক্লোজ করে দিন

এর পর ডাউনলোড করা ফাইল গুলোর সাতে একটি  Crack  নামক ফোল্ডার আছে। তাতে ক্লিক করুন

নিচের ছবির মত কপি করুন

কপি করে সফটওয়ারটি আপনি  যে ড্রাইভ এ ইন্সটল করেছেন।  সেই খনে পেস্ট করুন। সম্ভবত C Drive এ ইন্সটল করেছেন। ডেক্সটপ এ আইডিএম আইকনটিতে রিহত ক্লিক করে।ওপেন ফাইল লোকেশন এ ক্লিক করুন।নিচের মত

এর পর কপি করা ফাইল টি এইখানে পেস্ট করে দিন।একটি massage আস্তে পারে এই খনে কপি অ্যান্ড রিপলেস এ ক্লিক করুন। এর পর আরারেকটি massage আস্তে পারে সেইখনে continue তে ক্লিক করুন।

এর পর Start মানু তে ক্লিক করে আইডিএম এ ক্লিক করুন  এর পর ফাইল টি রান করুন।

এর পর নিচের মত user name license কী চাইতে পারে। ক্লোজ করে দিন।

নিচের উইন্ডোটি ও  ক্লোজ করেদিন।

এর পর crack নামক ফোল্ডার এ আবার ক্লিক করুন ও খনে দেখবেন দুই টি  registry key আছে। আপনার অপারেটিং সিস্টেম যদি ৩২ বিট হই তাহলে ৩২ বিট এ ক্লিক করুন।আর যদি ৬৪ বিট হই তাহলে ৬৪ বিট এ ক্লিক করুন।

এর পর একটি massage দেখাবে এইখানে yes বাটন এ ক্লিক করুন

এর পর আপনাকে একটি  সাকসেসফুল massage দেখাবে।

এর পর আবার নিচের মত আইডিএম এ ক্লিক করুন। আইখানে  About Idm  এ ক্লিক করুন।

এর পর সব শেষএ আপনি চিরদিন এর জন্য আইডিয়াম টি পেয়ে যাবেন ।

বিঃদ্রঃভুল ও Update দেবেন না।
বিঃদ্রঃ আপনার পূর্বে যদি আইডিএম এর ট্রাইয়াল  ভার্সন থেকে থাকে তাহলে সেটি আনইন্সটল করুন।

আর যাদের এত জামেলা পছন্দ না তারা এই লিঙ্ক থেকে আইডিএম ডাউনলোড করে ইন্সটল করুন। কিন্তু এটি অনেক আগের ভার্সন আইডি  এম ৬.০৩ ভিটা । তবে কোন সমস্যা নেই update না দিলেই হল।নিচের ডাউনলোড ইমেজ এ ক্লিক করে ডাউনলোড করে নিন।

আইডিএম কে নতুন রূপে দেখার  জন্য কিছু থিমস  ডাউনলোড করে নিন।

প্রথমে এই লিঙ্ক  এ যান তাঁর পর এই খান থেকে আপনার যে থিম টা পছন্দ সেটি ডাউনলোড করুন ।ডাউনলোড করার পর  Download করার পর  যেকোনো  ড্রাইভ এ  Extract করুন ।এর পর আপনি যে ড্রাইভ এ আইডিএম ইন্সটল করেছেন

সে ড্রাইভ এ গিয়ে Idm এ  ফোল্ডার এ ক্লিক করুন এর এই খনে Toolbar নামক একটি ফোল্ডার দেখতে পারবেন

ও খানে এক্সট্র্যাক করা ফাইল টি   পেস্ট  করে দিন ।

অনেক টা আই রকম  C:(or your desired Location)>Program Files>Internet Download Manger> Toolbar> এখানে কপি করার পর idm বন্ধ করে আবার চালু করুন। এখন IDM এর মেনু বার থেকে View > Toolbar > নিচ থেকে ওই Toolbar  সিলেক্ট করুন ।

এর পর নিচের মত আউটপুট দেখতে পারবেন।

আইডিএম এর নতুন বাবহারি দের জন্য কিছু টিপসঃ

Downloads>Option এ যান

এরপর

এরপর

winrar

winrar এর কাজ হল  হলো  RAR বা ZIP File খোলার জন্য  একটি অসাধারন এক সফটওয়্যার। যা দিয়ে খুব সহজেই ফাইল কম্প্রেস করা যায়। মনে করুন আপনি মেইল করে  ১০০ টা ছবি একজন কে পাঠাবেন তখন আপনার একটি একটি করে ফাইল আপলোড করতে অনেক সময় লাগবে। Winrar এর  মাধ্যমে আপনি খুব সহজে ১০০ টি ফাইল কে ১টি ফাইল এ রূপান্তর করতে পারবেন। যারা  কম্পিউটার এর  একদম নতুন ব্যাবহারকারি তারা নিচের টিপস গুলো দেখুন ।যে ফাইল টি জিপ করতে চান সেইটির ওপর মাউস এর রাইট বাটন এ ক্লিক করে Add To Archive এ ক্লিক করুন।

জিপ বা রার যে কোন একটি সিলেক্ট করে ওকে বাটন এ ক্লিক করুন

এর পর আপনার ফাইল এর সাইজ যদি বেশি হই সেক্ষত্রে জিপ হতে সময় বেশি লাগতে পারে।

এর পর নিচের মত আউটপুট দেখতে পারেন।

WINRAR  সফটওয়্যারটি  ৪০ দিন  মেয়াদ থাকে। ৪০ দিনপর  Winrar সফটওয়্যারটির  একটা message box শো করে যা খুভ বিরক্তিকর। নিচে আমি যেভাবে Winrar সফটওয়্যারটি কে ফুল ভার্সন করবেন তাঁর একটি বিস্তারিত বর্ণনা করলাম ।
Winrar সফটওয়্যারটি ডাউনলোড করতে নিচের ডাউনলোড ইমেজ এ  ক্লিক করুন।

ডাউনলোড করার পর ফাইলটি  এক্সট্র্যাট করুন।এক্সট্র্যাট করার পর নিচের মত চারটি ফোল্ডার পাবেন। আপনার অপারেটিং সিস্টেম যদি ৩২ বিট হই তাহলে ৩২ বিট সফটওয়্যার টি  ইন্সটল  করুন।আর যদি ৬৪ বিট হই তাহলে ৬৪ বিট ইন্সটল  করুন।

আমার  অপারেটিং সিস্টেম যদি ৩২ বিট  তাই আমি ৩২ বিট ইন্সটল করছি।

নেক্সট OK  দিয়ে সফটওয়্যার টি ইন্সটল করুন।

এর পর ওকে চাপুন।সফটওয়ারটি ইন্সটল হলে ওপেন করুন

ওপেন করে About Winrar এ ক্লিক করুন।এর পর দেখবেন ৪০ দিন এর মায়েদ দেখাছে।

এর পর  Winrar icon এ রাইট ক্লিক করে Open file location এ ক্লিক করুন।

যে ড্রাইভ এ ইন্সটল করেছেন সেটি ওপেন হবে ।এই খানে  Registry key ফাইল টি কপি করে পেস্ট করে দিন।

এইখানে  পেস্ট করুন।

Continue তে ক্লিক করুন

সব শেষ এ আপনি Winrar টি ফুল ভার্সন পেয়ে যাবেন।

Winrar এর জন্য কিছু থিম নিয়ে নিন।

প্রথমেই   এখান  থেকে যে থিম টা পছন্দ হয় সেই zip ফাইল টা Download করে নিন । নিচের মত একটি উইন্ডো আসবে ইয়েস দিন

এর পর ওকে দিন

Start Menu থেকে WinRAR ওপেন করুন তারপর Options > Themes > থেকে থিমটিকে সিলেক্ট করে দিন

এভাবে একটা একটা ডাউনলোড করে সেটআপ দিয়ে দেখুন আপনার কোনটা ভাললাগে।

ধন্যবাদ সবাইকে পোস্টটি পড়ার জন্য।ভালো লাগলে সবার সাতে শেয়ার করুন।

এই পোস্টটি আগে ব্লগে প্রকাশ হয়েছে।

ফেসবুক এ আমি

Level 0

আমি রিদম দত্ত। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 6 বছর 8 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 34 টি টিউন ও 270 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 0 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।

হাই আমি রিদম , জানি না তেমন কিছু তবে যা জানি তা সবার মাঝে শেয়ার করার চেষ্টা করি,টেকনোলজি কে অনেক ভালোবাসি টেকনোলজি ছাড়া এক সেকেন্ড ও চলতে পারি না।বর্তমানে পড়াশোনার পাশাপাশি আর্ট ওয়েব ইউ আই ইউএক্স ডিজাইন ও ওয়েব প্রোগ্রামিং নিয়ে কাজ করছি।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

dhonnobad
besirvag e jantam tobe jara jane na tader kaje lagbe 🙂

সারোয়ার হোসেন :ধন্যবাদ আপনার কমেন্ট এর জন্য,।যারা জানেন না শুধু তাদের জন্য করেছিলাম।