ADs by Techtunes ADs
ADs by Techtunes ADs

এটুআই এর এসআইএফ এওয়ার্ডে নির্বাচিত হয়নি আমার যে আইডিয়াটি

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এটুআই প্রকল্প সবার কাছে বিভিন্ন উদ্ভাবনী আইডিয়া চেয়ে থাকে এবং সেটি বাস্তবায়নে তারা ফান্ড দেয়। সাইটটি দেখে একদিন আমিও আমার একটি আইডিয়া দিলাম। অবশ্য বাল্য বিবাহ রোধে এসএমএস কিংবা মা ও শিশু এপসের অথবা এন্টি ভাইরাসের মত ইউনিক আইডিয়া না হওয়াতে কতৃপক্ষ সম্ভবত আমার আইডিয়াটি গ্রহন করেনি। যাইহোক তাদের বিবেচনাতে যেটা ভালো মনে হবে তারা সেটাকেই প্রাধান্য দেবেন। যেহেতু আমার আইডিয়াটি গ্রহন হয়নি তাই ভাবলাম আমি যে আইডিয়াটি দিয়েছিলাম সেটার কিছু অংশ টেকটিউনসের সবার সাথে শেয়ার করি। তবে মূল প্রস্তাবনায় কর্মকৌশল, পদ্ধতি, যৌক্তিকতা ও বাজেট সম্পর্কে আরো অনেক তথ্য ছিল যা এখানে সংক্ষিপ্ত করে এনেছি।

ADs by Techtunes ADs

আইডিয়ার প্রাথমিক ধারনাঃ

রাষ্ট্রীয় ডোমেইন হোস্টিংয়ে একটি ওয়েব সাইট থাকবে যেখানে দেশের সকল প্রতিষ্ঠান তাদের নিজ উদ্যেগে এখানে তথ্য দিবে এবং নিজেদের একটি পেজ খুলবে (পেজ খুলতে তাদের বিভিন্নভাবে উতসাহিত করা যেতে পারে আর প্রান্তিক পর্যায়ে সেচ্ছাসেবক তো থাকবেই), মূলত এখানে সাবডোমেইনের মাধ্যমে নিজের সাইট খোলার ব্যাবস্থা থাকবে, প্রান্তিক পর্যায়ে ব্যাপারটি সেচ্ছাসেবকদের দ্বারা মানুষকে ভালো করে বিশেষভাবে ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা কৃষকদের বোঝানো গেলে তারা অবশ্যই আকৃষ্ট হবে কারন তারা দেখবে বলতে গেলে কোন খরচ ছাড়াই সে তার পণ্য অনলাইনে অনেক দূরের মানুষের কাছে পৌছাতে পারছে, আর সেচ্ছাসেবকদের একটি স্বল্পমেয়াদী প্রশিক্ষণে শিখিয়ে দেয়া হবে কিভাবে এই সাইট খোলা হবে, (উভয় পক্ষকে উতসাহিত করতে এবং ভালো করতে সাইটে প্রতিদিনের সেরা সাইট বা ভোটিং বা বিভিন্ন ধরনের সেরা সাইটের তালিকা থাকতে পারে) তারা যাদের এই সাইট খুলে দিবে বা এই সাবডোমেইনের মাধ্যমে পেজ করে দিবে তারা তাদের ৫০ থেকে ১০০ টাকার মত একটা সম্মানী দিবে, এটার ফলে সেচ্ছাসেবকরা নিজেদের আয় বাড়াতে আরো অনেককে সাইট খুলতে এবং এর উপকারীতা বোঝাতে সহায়তা করবে, এর ফলে কয়েকটি কাজ একসাথে হবে দেশের প্রান্তিক পর্যায়ের সকল উদ্যেগ কৃষি পণ্য ওয়েবে নিয়ে আসা যাবে, তারা অনলাইনের সুফল ভোগ করবে, আর শহরের/দেশের বাইরের মানুষ খুব সহজে সেই উদ্যোগ সম্পর্কে জেনে নিজের প্রয়োজনীয় পণ্য সংগ্রহ করতে পারবে, মাঝে প্রতি গ্রামে বেকার তরুনদের একটি বিশাল দলকে যদি সেচ্ছাসেবক হিসেবে ব্যাবহার করা যায় তবে তারা এই পেজ করে দিয়ে আয় করতে পারবে, আর নিজেদের আয় বাড়াতে তারা প্রান্তিক পর্যায়ে আরো বেশী এর সুফল তুলে ধরবে। এরপর একটি পর্যায়ে প্রান্তিক পর্যায়ে যারা এই সুফল ভোগ করবে তারা নিজ উদ্যেগে এরপর নিজের ডোমেইন হোস্টিংয়ে আরো পেশাদার সাইট করতে চাইবে, তাতে অনলাইনের পরীসীমা আরো বাড়বে, আর ঐ যে সেচ্ছাসেবকরা সাব ডোমেইনে সাইট খুলে দিত ততদিনে তারা আরো অভিজ্ঞ হয়ে যারা নিজ ডোমেইনে হোস্টিংয়ে সাইট খুলবে তাদের সাইট তৈরী করে দিবে, চাহিদা আরো বাড়তে থাকলে তারা অনেকে নিজেই ক্ষুদ্র পরিসরে আইটি ফার্ম খুলে এই সেবা দিবে, প্রান্তিক পর্যায়ে এসব আইটি ফার্মে আরো অনেকের কর্মসংস্থান হবে, তাদেরকে যদি মাঝে মাঝে কিছু প্রশিক্ষণ দেয়া যায় তাহলে প্রান্তিক পর্যায়ে গড়ে উঠবে প্রশিক্ষিত আইটি এক্সপার্ট, দেশের বাইরে থেকেও তখন তাদের কাছে কাজ আসবে, কিংবা তারাও ফ্রিল্যান্সিং সাইটগুলো থেকে ভালো আয় করবে।
(আমাদের শুধু শুরুটা করে দিতে হবে বাকীটা সুফল ভোগীরাই এগিয়ে নেবে)
এর ফলে যে সুফল গুলো হবে তা এমনঃ

  • প্রান্তিক পর্যায়ের সকল উদ্যোক্তার ওয়েব থাকবে (মূলত এই সাইটের সাব ডোমেইন সিস্টেমের মাধ্যমে যেখানে তাদের বলার মত কোন খরচ নাই)
  • শহরের মানুষ খুব সহজে প্রান্তিক পর্যায় থেকে কম দামে পণ্য কিনতে পারবে, আর প্রান্তিক পর্যায়ের যারা থাকবে তারাও বেশী ব্যাবসার মাধ্যমে বেশী আয় করতে পারবে, অনলাইনের সুফল ভোগ করবে
  • গ্রামের অনেক বেকার তরুন প্রাথমিক ভাবে আয় করতে পারবে, প্রকল্প ঠিকভাবে এগুলো যারা কিনা হয়ে উঠবে নিজেরা আইটি এক্সপার্ট, সফল উদ্যোক্তা বা ফ্রিল্যান্সার, তাদের মাধ্যমে কর্মসংস্থান হবে আরো অনেকের
  • প্রাথমিকভাবে যেসব উদ্যোক্তা অনলাইনের সুফল পাবেন তারা আরো পেশাদার সাইট তৈরী করবে নিজ উদ্যোগেই, ফলে কর্ম মিলবে আরো আইটি প্রশিক্ষিত জনগোষ্ঠীর যারা প্রাথমিক ভাবে সেচ্ছাসেবক ছিল, আর দেশেও পণ্যের অনলাইন সেবা আরো জনপ্রিয় এবং সহজ হবে ঐ সব ক্ষুদ্র উদ্যোক্তার মাধ্যমে, তাদের প্রান্তিক পর্যায়ের ব্যাবসাও দেশ-বিদেশে ছড়িয়ে পড়বে
  • সরকারের কাছেও থাকবে প্রান্তিক পর্যায়ের একটি বিশাল তথ্য সম্বলিত ডাটাবেজ, যা কিনা রাষ্ট্রীয় বিভিন্ন কাজকে সহজ করতে পারে

কিন্তু শুরু কিভাবে?

    • সাইট তৈরী ও প্রচার
    • প্রতি উপজেলার শিক্ষিত বেকার তরুন/তরুনীদের তালিকা প্রস্তুত
    • তাদের নিয়মিত প্রশিক্ষণ ও পর্যবেক্ষণ
    • সাইট তৈরীর পাশাপাশি ফ্রিল্যান্সিংয়ে তাদের আগ্রহ তৈরী
    • ৬ মাস পর্যন্ত মাঠ পর্যায়ে তাদের কাজ পর্যবেক্ষণ, ভাল কাজ যারা করবেন তাদের উতসাহিত করতে পুরস্কৃত করা

    উদ্যোক্তা ও সেচ্ছাসেবকরা কেন উতসাহিত হবে?

    • নিজের দক্ষতা ও মেধার মাধ্যমে তৈরী পণ্য সরাসরি ভোক্তার কাছে পৌছানো এবং সফল উদ্যোক্তা হয়ে ওঠা
    • সেচ্ছাসেবক হিসেবে প্রাথমিক ভাবে সাইট তৈরী এবং আপডেট করে দিয়ে আয় করবে পরবর্তীতে হবেন আইটি এক্সপার্ট বা সফল ফ্রিল্যান্সার

    এতে দেশের কি কি লাভ হতে পারে?

    • প্রান্তিক পর্যায়ের পণ্য ভোক্তার কাছে সহজে পৌছাবে বাচবে সময় ও যাতায়াতের খরচ
    • শিক্ষিত বেকার জনগোষ্ঠীর কর্মের সুযোগ হবে যারা কিনা এক সময় হবে প্রশিক্ষিত আইটি এক্সপার্ট বা সফল ফ্রিল্যান্সার
    • মধ্যস্বত্ত ভোগীদের প্রভাব কমে আসায় উদপাদক এবং ভোক্তা উভয়েই হবেন লাভবান, পণ্যের দাম যেমন কম হবে তেমনি উদ্যোক্তাও অপেক্ষাকৃত বেশী লাভ পাবেন, এতে দ্রব্যমূল্য যেমন নিয়ন্ত্রনে থাকবে তেমনি প্রান্তিক উদ্যোক্তারা আরো সফল হবেন তাদের জীবন যাত্রার মান বাড়বে।

    কিন্তু কি কি সমস্যা হতে পারে?

    • ওয়েব সার্ভার লোডের কারনে স্লো হতে পারে
    • বেকার যুবকদের অনেকে দ্বীধাহীনতায় ভূগতে পারে
    • প্রান্তিক পর্যায়ের উদ্যোক্তাদের মধ্যে অনেকে উতসাহী না হতে পারে
    • প্রশিক্ষিত অনেকে বিকল্প পেশায় চলে যেতে পারে

    কিন্তু প্রচার তো দরকার সেটা কিভাবে?

    • সারাদেশের ইউনিয়ন পর্যায়ে তথ্য সেবা কেন্দ্রের মাধ্যমে উদ্যোক্তা ও বেকার যুবকদের জানানো
    • উদ্যোগের বিভিন স্তরে প্রশাষনিক সহায়তা
    • মিডিয়ার গ্রহণযোগ্যতা পেতে সহায়তা

      মূল উদ্দেশ্য কি আসলে?

      • প্রকল্পটির মূল উদ্দেশ্য হল প্রান্তিক পর্যায়ের উদ্দ্যেগ গুলোকে অনলাইনের মাধ্যমে মানুষের দোড়গোড়ায় পৌছানো
      • মাঠ পর্যায়ের উদ্যোগ ও সর্বসাধারনের বিশাল তথ্যের ডাটাবেজ তৈরী
      • বেকার যুবকদের কর্মের সুযোগ
      • দক্ষ তথ্য প্রযুক্তিবিদ ও প্রতিষ্ঠান তৈরী

      কিন্তু সরকার কেন এখানে অর্থ দিবে তাদের কি লাভ?

      এর সবকিছু সঠিক ভাবে বাস্তবায়ণ হলে সরকার বিশাল অংকের ভ্যাট পাবে, আর যাদের জন্য এই প্রকল্প তাদের আর্থিক সফলতায় প্রকল্পের সাফল্য এবং মূল উদ্দেশ্য, সম্মিলিত ভাবে যা কিনা সরকার ও দেশের সাফল্য

    ADs by Techtunes ADs
    Level 0

    আমি প্রযুক্তি প্রেমী। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 11 বছর 11 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 137 টি টিউন ও 2163 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 3 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।


    টিউনস


    আরও টিউনস


    টিউনারের আরও টিউনস


    টিউমেন্টস

    নিঃসন্দেহে একটা ভাল আইডিয়া। কিন্তু কেন গৃহীত হয়নি সেটাই চিন্তার বিষয়।

    Level 0

    ভাই আপনার আইডিয়া খুব ভাল। আপনার আইডিয়াতে সবাই রাষ্ট্রীয় ডোমেইন ব্যবহার করতে বলা হয়েছে, কিন্তু আমরাতো সবাই এক সাথে কাজ করতে পারিনা। ডিবির একজন কর্মকরতা সব পুলিশে (DMP, DB, SB, PBI, RAB) জন্য একটি সারভার করার চেষ্টা করে ব্যর্থ হন।ব্যর্থ হবার করন কেউ এক সাথে কাজ করবে না। কারন এক সাথে কাজ করলে তো টাকা চুরি করা যাবে না। তবে আমি এটা বলতে পারি, ভবিষ্যতে এক দিন এই সব আইডিয়া বাস্তবায়ন হবে।

      @Munir: রাষ্ট্রীয় ডোমেইন বলতে আমি বুঝিয়েছে রাষ্ট্রীয় একটা সাইট থাকবে ডট কম ডট বিডিতে যেখানে ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা এবং ব্যাক্তি পর্যায়ে সাব ডোমেইন খুলবে অনেকটা ইয়োলাসাইট বা ওয়েবস ডট কমের মত, কেউ আলাদা করে ডোমেইন বা হোস্টিং নেবে না, ফ্রীতে নিজের সাইট বানাবে ওখান থেকে