তৈরী হয়ে গেছে দেশী ল্যাপটপ দোয়েল, এবার শুধু উদ্বোধনের অপেক্ষা

টিউন বিভাগ খবর
প্রকাশিত

দেশে তৈরি সাশ্রয়ী মূল্যের ল্যাপটপ ‘দোয়েল’ বাজারে ছাড়ার প্রায় সব প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে জানিয়ে ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী রাজীউদ্দিন আহমেদ রাজু বলেছেন, এখন প্রধানমন্ত্রীর অনুমতি পেলেই বিক্রি শুরু হবে।

“এ ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদনের জন্য আবেদন পাঠানো হয়েছে। তিনি অনুমোদনদিলেই দ্রুত বাজারজাত করা হবে এই ল্যাপটপ।”

এ বিষয়ে নির্দিষ্ট কোনো তারিখ জানাতে না পারলেও মন্ত্রী বলেন, “প্রধানমন্ত্রী দেশের বাইরে যাচ্ছেন। সফরের আগে বা পরে ল্যাপটপটি উদ্বোধন করা হবে।”

“গত আড়াই বছর ধরে এ ল্যাপটপ বাজারজাত করার জন্য কাজ চলছে। এখন শুধু উদ্বোধনের অপেক্ষা,” যোগ করেন মন্ত্রী।

১০ হাজার, ১২ হাজার, ২১ হাজার ও ২৫ হাজার টাকায় চার ধরনের ‘দোয়েল’ বাজারে পাওয়া যাবে। এই ল্যাপটপ বাজারে এলে বিদেশি কোম্পানিগুলো তাদের ল্যাপটপের দাম কমাতে বাধ্য হবে বলেও আশা করছেন রাজু।

এই ল্যাপটপ তৈরির জন্য প্রথামিকভাবে ১৪৮ কোটি টাকার একটি প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়। টেলিফোন শিল্প সংস্থা লিমিটেডের (টেশিস) গাজীপুর কারখানায় গত ১০ জুলাই ‘দোয়েলে’র পরীক্ষামূলক উৎপাদন শুরু হয়।

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) পরামর্শ ও সহযোগিতায় মালয়েশিয়ার প্রতিষ্ঠান ‘থিম ফিল্ম ট্রান্সমিশন’ (টিএফটি) এবং কয়েকজন বিদেশি বিশেষজ্ঞের সহযোগিতায় এ প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে টেশিস। ল্যাপটপের মাদার বোর্ডসহ শতকরা ৬০ ভাগ যন্ত্রাংশ তৈরি করা হচ্ছে দেশেই।

তথ্যসূত্র

Level 0

আমি Ripendil। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 9 বছর 10 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 42 টি টিউন ও 140 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 0 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

ভাইরে সত্যি কথা কই ১০ হাজার টাকাও অনেক আমার কাছে।আমারও কিনবার মুঞ্ছায়।দেখি টাকা জমানো শুরু করব।

ভাবতেসি ৭০০০ টাকারটা নিমু, ওয়াইফাই আছে। ডাউনলোড আর প্রোগ্রামিং এর জন্য 😛

আশা করি গুনগত মান ভাল হবে।

আমার দরকার নেই। ধন্যবাদ।
আশা করি অনেকের উপকারে আসবে।জিনিসটাও সেরকম ভালোহবে। 🙂

আমি চুতু দেখে এক্তা নিব…।। ধন্নবাদ খবরta share করার জন্য

ভাই এর মধ্যে আবার ফরমালিন নাইতো ?

অ্যান্ডরয়েড অপারেটিং সিস্টেম চালায় ক্যামনে ???

    Level 0

    @কমপুটার পোকা: এগুলোতে অ্যান্ডয়েড থাকবে না, এগুলোতে উইন্ডোজ থাকবে। আর অ্যান্ড্রয়েড আসলে ট্যবলেট পিসি এবং মোবাইলের জন্য।

এটার অবস্থা কি হবে সেটা আমি বলি শুনেন।
১। প্রথম দিন ৬ ঘণ্টা লাইন এ দাড়িয়ে বিরক্ত হয়ে চলে আসবেন।
২। দ্বিতীয় দিন মার্কেট আউট, অথবা পাইলেও দাম বেশি।
৩। তৃতীয় দিন সিন্ডিকেট। আর পাইবেন না।
৪। চতুর্থ দিন এটার গুণগত মান নিয়ে প্রশ্ন উঠবে।
৫। পঞ্চম দিন ওয়ারেন্টী সাপোর্ট নিয়ে ক্রেতাদের হয়রানী।
৬। ষষ্ঠ দিন বিক্রি বন্ধ।
৭। সপ্তম দিন ভুলে যাবেন।

দুঃখিত, কোন কিছুকে ছোট করার জন্য আমি কিছু বলি নাই।

বাই Dell কোম্পানি নকল করে Doel পাখি বানাইসে আমার যা মনে হয় কারন আমরা বাঙ্গালি সব কিছু করতে পারি পরে দেকবেন বাই কোম্পানি off করে দিবো
লেখতে ভুল হলে ক্ষমা করবেন

    Level 0

    @RASHADUL: আমরা বাংলাদেশীরা আর কিছু পারি আর না পারি কোন কিছুর খুত বের করতে আমাদের ২ সেকেন্ড সময় লাগেনা। দেশে একটা ভাল উদ্যোগের বাস্তবায়ন হয়েছে। সেটাকে আমরা উতসাহিত না করে নগদে বের করে ফেললাম এটি ডেল এর নকল, বের করে ফেললাম এটি সপ্তম দিনে ভুলে যাব ইত্যাদি ইত্যাদি। লোগো তে মিল থাকতে পারে, সেটা নিয়ে ডেল এর মাথাব্যাথা যখন নেই তখন আপনার আমার মাথা ব্যাথা কেন? এই ব্র্যান্ড যতই ভাল হোক আমরা তো কিনবো না, কারন আমরা বিদেশী জিনিস ব্যবহার করতে পছন্দ করি দেশী জিনিসের ধার ধারি না। সমগ্র চীন আজ ইলেক্ট্রনিক বিশ্বে রাজত্ব করছে, সেখানে কিন্তু কেউ নকল নিয়ে প্রশ্ন করছে না। আর আমরাও সেই নকল নোকিয়া নকল সামসাং কিনছি কিন্তু সেখানে কি প্রশ্ন করেছেন এইটা নকল তাই এটা ব্যাবহার করব না? নাকি সাশ্রয়ী দামী মোটামোটি সহনশীল প্রোডাক্ট ব্যাবহারে উতসাহী হয়েছেন? চায়নীজ মাল যদি কিনতে পারেন সেখানে আমাদের দেশের বেলায় এত অবহেলা কেন?

      একমত পোষন করছি।

      @Ripendil: আমিও আপতা নার সাথে সহমত।। কিন্তু এতা কিনতে যে হইরানি হব সেতা থিক।। =but BEST OF LUCK ]]———->> DOEL 😀

@shahadat hossain সহমত
আমরা আশাবাদী হলেও অতীতের ইতিহাস (টেলিটক) কিন্তু তাই বলে।

দেখি আসার পর একটা পাওয়া যায় কিনা
ধন্যবাদ আপনাকে

Level 0

148 koti takar project. Attosat hobe 48 koti taka. baki thake 100 koti taka. Ata khub samanno.Project Bastobayoner jonno…..Sob “CHOR”

দেশের তৈরী ল্যাপ্টপ ভাল হোক খারাপ হোক তারপরও স্বাগতম জানাই,
কিন্তু দুঃখ্য লাগে আবার এই কথা শুনে উদ্ভোদনের জন্য আটকে আছে বিক্রি,কবে যে যাবে এই লাল পিতার সংস্কৃতি জানিনা।আমরা আসলে নামেই শ্রেষ্ট হতে চাই কাজে নয়,উন্নত বিশ্বে মনে হয় না এই সব হয় বাজে কাজ হয়।প্রথম যখন ল্যাপ্টপ আবিস্কার হয়েছিল তখনো মনে হয় সেই দেশের সরকার প্রধান ঐটা উদ্ভোদন করতে আসেননি।

অব্শই ভালো উদোগ। কিনতু আমরা সরবদা নিজের চিনতা করি। যারা উদোগ নিয়েছে তারা যদি আমাদের দেয় তো ভালো-দেখি আমাদের হাতে কবে আসে ! কারন আমরা ৯ টার গাড়ি কয়টায় ছাড়ে-এই ফরমুলা অনুসরন করি।

Level 0

খুবই ভাল লাগল। আমি একটা কিনব চিন্তা করতেছি।