ADs by Techtunes ADs
ADs by Techtunes ADs

ইরাক যুদ্ধ নিয়ে উইকিলিকস এর সত্য উদঘাটন

টিউন বিভাগ খবর
প্রকাশিত

ইরাক যুদ্ধের গোপন দলিল ফাঁস করে দিয়ে গোটা বিশ্বে আবারও তোলপাড় তুলল উইকিলিকস৷ ইরাক যুদ্ধের সময় মার্কিন বাহিনীর নৃশংসতার কাহিনী বর্ণিত হয়েছে এইসব ফাঁস হওয়া দলিলে৷

শনিবার এক সংবাদ সম্মেলনে উইকিলিকস এর প্রতিষ্ঠাতা জানিয়েছেন এর মাধ্যমে আসলে সত্য উদঘাটিত হয়েছে৷ এর আগে আফগানিস্তান যুদ্ধের ৭৭ হাজার গোপন দলিল ফাঁস করে দিয়েছিল উইকিলিকস৷ এবার তারা ইরাক যুদ্ধের চার লাখ গোপন দলিল প্রকাশ করে দিল৷

ADs by Techtunes ADs

সত্য উদঘাটন

লন্ডনের এই সংবাদ সম্মেলনে উইকিলিকস ছাড়াও উপস্থিত ছিল বডি কাউন্ট নামে একটি সংগঠনের প্রতিনিধিরা, যারা ইরাক যুদ্ধে নিহতদের সংখ্যা ওয়েবসাইটে প্রকাশ করতো৷ তবে মূল নজর ছিল উইকিলিকস এর প্রতিষ্ঠাতা জুলিয়ান আসানজে কি বলেন তাঁর দিকে৷ তিনি বলেছেন, ইরাক যুদ্ধের আগে থেকেই সত্যকে আড়াল করার চেষ্টা করা হয়েছে এবং সেটি এখনও চলছে৷ এবং এই দলিল ফাঁস করে দিয়ে সেই সত্যটিকেই মানুষের সামনে তুলে ধরা হয়েছে৷ তিনি জানিয়েছেন যে ২০০৪ সাল থেকে ২০০৯ সাল পর্যন্ত মার্কিন সেনারা এক লাখ নয় হাজার মানুষের মৃত্যুর ঘটনা লিপিবদ্ধ করেছে যার মধ্যে ৬৬ হাজার হচ্ছে বেসামরিক নাগরিক৷ মার্কিন সেনাদের হাতে এত হতাহতের ঘটনা ঘটলেও সেসব চেপে যাওয়ার নির্দেশ দিয়েছিল পেন্টাগন৷USA Kampfpanzer bei BagdadBildunterschrift: Großansicht des Bildes mit der Bildunterschrift:  বাগদাদের রাস্তায় মার্কিন ট্যাংক

মার্কিন বাহিনীর নৃশংসতা

যুদ্ধ ছাড়াও আরও নানাভাবে ইরাকিদের জীবন দিতে হয়েছে বিদেশি সেনাদের হাতে৷ মার্কিন সেনাবাহিনীর ইতিহাসে সবচেয়ে বড় ফাঁস হওয়া এই দলিলে দেখা গেছে, জেলের মধ্যে ইরাকিদের কিভাবে নির্যাতন এবং পরে হত্যা করা হয়েছে৷ পথচারীদের রাস্তার পাশে গুলি করে মেরে ফেলা হয়েছে৷ চেক পয়েন্টগুলোতে তল্লাশি চালানোর সময় ইরাকিদের ওপর গুলি চালানো হয়েছে৷ বিশেষ করে ৩৫ বছরের অন্তঃসত্ত্বা নাবিহা জসীম, যিনি হাসপাতালে যাচ্ছিলেন সন্তান জন্ম দেওয়ার জন্য, তাঁকে কিভাবে চেক পয়েন্টে গুলি করে হত্যা করেছিল মার্কিন বাহিনী সেই কাহিনীও জানা গেছে এই গোপন দলিল ফাঁস হওয়ার মাধ্যমে৷

বডি কাউন্ট সংগঠনের বক্তব্য

শনিবার সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনটির প্রধান জন স্লোবোডা৷ তিনি জানিয়েছেন, ইরাক যুদ্ধে এখন পর্যন্ত দেড় লাখেরও বেশি মানুষ জীবন দিয়েছে যার মধ্যে শতকরা ৮০ ভাগ বেসামরিক নাগরিক৷ তিনি জানিয়েছেন, মার্কিন বাহিনীর অনেক সেনা সদস্যই এইসব ঘটনার দিন ক্ষণ লিখে রাখতো৷ কিন্তু এই ধরণের অনেক ঘটনাই পরে চেপে যাওয়া হয়েছিল৷ জন স্লোবোডা আরও জানিয়েছেন যে এই ধরণের অন্তত ১৫ হাজার হত্যাকান্ড ফাঁস হয়েছে গোপন দলিল প্রকাশের মাধ্যমে৷ এবং এইসব হত্যাকান্ড প্রতিদিনই একাধিকবার ঘটেছে৷আবু গ্রাইব কারাগারে মার্কিন বাহিনীর নির্যাতনের একটি নমুনাBildunterschrift: Großansicht des Bildes mit der Bildunterschrift:  আবু গ্রাইব কারাগারে মার্কিন বাহিনীর নির্যাতনের একটি নমুনা

যুদ্ধাপরাধের অভিযোগ

উইকিলিকস এর প্রতিষ্ঠাতা জুলিয়ান আসানজে সংবাদ সম্মেলনে জানিয়েছেন যে তারা ব্রিটেনের আইনজীবীদের সঙ্গে ইতিমধ্যেই এই নিয়ে কথা বলছেন৷ তারা অন্তত ৪০ টি হত্যাকান্ডের ব্যাপারে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সংগ্রহ করেছেন৷ এইসব হত্যাকান্ডের মাধ্যমে দেখা যাচ্ছে যে মার্কিন বাহিনী ইরাকে যুদ্ধাপরাধের সঙ্গে যুক্ত ছিল৷

প্রতিক্রিয়া

ADs by Techtunes ADs

স্বাভাবিকভাবেই মার্কিন প্রশাসন এর প্রতিবাদ জানিয়েছে৷ মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রী হিলারি ক্লিন্টন বলেছেন, আমরা যে কোন ধরণের গোপন দলিল ফাঁসের প্রতিবাদ জানাই যা কোন ব্যক্তির নিরাপত্তাকে হুমকির মুখে ফেলে৷ তবে উইকিলিকস এর পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, গোপন দলিল প্রকাশের সময় কোন ব্যক্তির উল্লেখ করা হয়নি৷ তাই কোন ব্যক্তির নিরাপত্তা ক্ষুন্ন হওয়ার সম্ভাবনা নেই৷ অন্যদিকে ইরাকি সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ফাঁস হওয়া এইসব ঘটনা নতুন কিছু নয়৷ তাই এতে আশ্চর্য হওয়ার কিছু নেই৷ আমরা অনেক আগেই আবু গ্রাইবের মত অনেক ঘটনা তুলে ধরেছি৷ এবং এতে মার্কিন বাহিনীর সংশ্লিষ্টতা ছিল৷

Main Link:- http://www.dw-world.de/dw/article/0,,6142699,00.html

ADs by Techtunes ADs
Level 0

আমি বিলালউদ্দিন। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 10 বছর 1 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 2 টি টিউন ও 55 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 0 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

Level 0

এরাই সমাজের প্রধান শত্রু। তাদের এই মিশন থেমে যায়নি। এখন্ও চলছে। আমরা মুসলিম যতদিন একতাবদ্ধ না হব ততদিন চলতেই থাকবে……………………..

    ঠিক বলেছো ভাই, আমাদের মুসলিমদের একতাবদ্ধ হতেই হবে। আল্লাহ্ আমাদের একতাবদ্ধ হওয়ার তৌফিক দান করুক। আমিন।