ফেইসবুকের ৮টি ফিচার যা গুগল প্লাসের নেই (এখন পর্যন্ত)

১। গেমস:

জিঙ্গার বিখ্যাত গেইম গুলো (মাফিয়া ওয়ার, ফার্মভিল, সিটিভিল ইত্যাদি খেলেন নি এমন ফেইসবুক ইউজার কমই আছে। ফেইসবুকের এসব থার্ডপার্টি গেইমের কারনেও ফেইসবুক অনেক জনপ্রিয়। এই ব্যাবারে গুগল প্লাস স্পষ্টভাবেই পিছনে। যদিও তারা জিঙ্গা কোম্পানির সাথে চুক্তি করেছে, আশা করা যায় জিঙ্গার গেইমগুলো গুগল প্লাসেও দেখা যাবে শিঘ্রই।

২। টুইটারে স্ট্যাটাস আপডেটঃ

ফেইসবুকের সাথে টুইটার খুব ভালোভাবেই সিনক্রোনাইজ করা ফলে ফেইসবুকের যেকোন পোস্ট অটোমেটিক্যালিও টুইটারেও পাব্লিশ করা যায় (টুইটার হ্যাশ ট্যাগ) কিন্তু গুগল প্লাস থেকে টুইটারে আপডেট দেয়া যায় না এখনো।

৩। থার্ড পার্টি অ্যাপ্লিকেশনঃ

ফেইসবুক পূর্ববর্তী অন্যসব সামাজিক নেটওয়ার্কের সাথে এই থার্ড পার্টি অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার সুবিধা ছিল ছিল ফেইসবুকের জনপ্রিয়তার অন্যতম কারন। লাখ লাখ অ্যাপ্লিকেশনের এই বিশাল সম্ভারের সাথে গুগল প্লাস কিভাবে পাল্লা দেবে সেটা একটা বিরাট প্রশ্ন।

৪। অন্য কারো সেটিংস পরিবর্তন না করে নির্দিষ্ট কোন ব্যক্তির পোস্ট হাইড করাঃ

"হাইড দিস পোস্ট" অথবা "হাইড অল ফ্রম..." এই অপশনের মাধ্যমে ফেইসবুকে নির্দিষ্ট কোন ব্যাক্তি বা পেইজের সকল পোস্ট হাইড করা যায় কিন্তু গুগল প্লাসে সেটিং পরিবর্তন ছাড়া এমন কোন ব্যবস্থা নেই।

৫। বার্থ ডে রিমাইন্ডারঃ

এত এত ফ্রেন্ডের জন্মদিন মনে রাখা বিরাট কঠিন কাজ। কাজটা অনেক ভাবে সহজ করে দিয়েছে ফেইসবুকের এই ফিচার। এই রিমান্ডারটি আবার চাইলে বন্ধ ও করা যায়। গুগল প্লাসে এমন কিছু নেই।

৬। ইভেন্টঃ

ফেইসবুকের খুবই গুরুত্বপূর্ন ফিচার এটি। ইভেন্ট তৈরী করে মানুষজন কে ইনভাইট করা যেকোন প্রোগ্রাম অর্গানাইজ করার কষ্ট অনেক কমিয়ে দিয়েছে। গুগল প্লাস এই দিক থেকে স্পষ্টতই পিছিয়ে।

৭। পোল এবং কোয়েশ্চেনঃ

বেশিদিন হয়নি এই ফিচারটি ফেইসবুকে এসেছে, কিন্তু জনপ্রিয়তা পেয়েছে আকাশ্চুম্বী। মাঝে মাঝে অবশ্য বিরক্তই লাগে এত এত প্রশ্ন দেখে! তবু এর মজা আসলেই আলাদা। দেখা যাক গুগল প্লাস এমন কিছু দেয় কিনা।

৮। ফেইসবুক ফ্রেন্ড রিকোয়েস্টঃ

ফেইসবুকে র‍্যানডম ভাবে অনেক প্রোফাইল দেখা যায় এবং ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পাঠানো যায় কিন্তু গুগল প্লাসে অলরেডী যাদের অ্যাকাউন্ট আছে তাদের খুজের পাবার কোন ব্যাবস্থা নেই প্রোফাইল লিঙ্ক ছাড়া।

মূল আর্টিকেল এখানে দেখুন

৬টি জিনিস যা গুগল প্লাস করতে পারে কিন্তু ফেইসবুক পারে না!!

সূত্রঃ সুখবর

Level 0

আমি Ripendil। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 9 বছর 11 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 42 টি টিউন ও 140 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 0 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

এইরকম খুটিয়ে খুটিয়ে চিরুনি তল্লাশি চালালেতো অনেক কিছুই পাবেন। তাছাড়া এখনও অফিশিয়াল রিলিজই হলনা তাই বলা যায়না কখন কোনটা এড করে। তাছাড়া কিছু ভিন্নতা থাকতেই হবে। নতুনত্ব না থাকলে কে সেখানে যাবে বলুন?

    Level 0

    ভাই এই জিনিসগুলো গুগল নিজেই জানে, এবং তারা আপডেট করবে দ্রুতই। আমি নিজেও চাই গুগল প্লাস ভাল একটা সোসাল নেটওয়ার্ক হোক তবে ফেইসবুক কে টেক্কা দিয়ে নয়। টুইটার যেমন ফেইসবুকের সাথে কনফ্লিক্ট করে না গুগল প্লাসও করবে না আশা করি।

হুম অনেক পার্থক্য তাই ই তো একটার নাম গুগল প্লাস আর্ একটার নাম ফেসবুক ।

তেনারা যত করবেন আমরা তত বেশি সুবিধা পাবো… এটাই বিধির বিধান… 🙂

    Level 0

    তারা আরো বেশি বেশি যুদ্ধ করুক, যুদ্ধ করে বেচে থাক!

ভাই আমি কাউকে add করতে চাইলে পারি না

Because sending requests to strangers is considered spam, your friend requests have been blocked for 30 days. Please visit the help center to learn more or let us know if you believe we've made a mistake. দেখাছে এটা কি ৩০দিনের আগে খুলার ব্যবস্থা আছে।

google আর facebook একই হয় তাহলে কেমনে হবে। সবার সব কিছু আলাদা থাকার দরকার। যদি দুটাই একই হয় তাহলে কনটা ব্যবহার করব? আর যদি দুটাই একই হয় তাহেল নিচ্ছই সবাই একটা ব্যবহার করবে। দরুন সবাই যদি গুগোল ব্যবহার করে তাহেল তো ফেসবুক এর গোয়াই বাঁশ। আমি চাই গুগল এবং ফেসবুক এর আলাদা আলাদা সুবিদা থাকুক। তাহলে আমরা দুটারই সুবিদা পাব।

গুগল প্লাসতো এখনো শিশু একটু বড় হইতে দেন তার পর দেখেন আরো কি কি দেয়।এত তারাতারি পার্থক্য খুজে কোন লাভ নাই।
আমারতো মনে হয় গুগল প্লাস সফল হবে।

Level 0

vai karo kacha fb credit softwear acha kena bolla khoshi hobo.
amar email:[email protected]