ADs by Techtunes ADs
ADs by Techtunes ADs

যে দেশে বাধ্য হয়ে পাইরেটেড সফটওয়্যার ব্যবহার করতে হয়

বাংলাদেশের একটি ইংরেজি দৈনিকের উদ্ধৃতি দিয়ে টিউনটি শুরু করছি। সম্প্রতি দি ইন্ডিপেন্ডেন্ট পত্রিকায় প্রকাশিত এক প্রতিবেদনের প্রথম প্যারাগ্রাফটি নিম্নরূপঃ

ADs by Techtunes ADs

The value of unlicensed softwares installed on personal computers in Bangladesh reached a record $137 million in 2010, a study revealed. The Global Software Piracy Study 2010 by Business Software Alliance (BSA), which evaluates the global state of software piracy, found that 90 percent of the softwares installed on PCs in Bangladesh are pirated.

অর্থাৎ, বাংলাদেশের কম্পিউটারসমূহের ৯০ শতাংশই পাইরেটেড সফটওয়্যার ব্যবহৃত হয়। এ সংক্রান্ত এই সংবাদের পুরোটা পড়তে এখানে ক্লিক করুন

বাংলাদেশে পাইরেটেড সফটওয়্যারের জনপ্রিয়তা আমাদের কাছে নতুন কিছু নয়। কিন্তু বহিঃর্বিশ্বের মানুষের কাছে কিন্তু মনে হতেই পারে বাঙালি জাতি চুরি করে অভ্যাস তাই সবাই পাইরেটেড সফটওয়্যার ব্যবহার করে। কিন্তু বাস্তবতা কিছুটা ভিন্ন। পাইরেটেড সফটওয়্যার ব্যবহারের পেছনে দু'রকমের কারণ থাকতে পারে। এক, সফটওয়্যার প্রয়োজন কিন্তু কিনে ব্যবহারের সাধ্য নেই। দুই, অন্য কারণে বাধ্য হয়ে পাইরেটেড সফটওয়্যার ব্যবহার করা। প্রশ্ন হচ্ছে, আমাদের ক্ষেত্রে মূল কারণ কোনটি?

বাংলাদেশের মানুষ জেনুইন সফটওয়্যার কিনে ব্যবহারের ক্ষমতা রাখে না এ কথা সত্য। মেনে নিতেই হবে বাংলাদেশে যদি সব জেনুইন সফটওয়্যার চালাতে হতো তাহলে আজ দেশে এতো এতো কম্পিউটার ব্যবহারকারী থাকতো না। কিন্তু আমরা কেন পাইরেটেড সফটওয়্যার ব্যবহার করি? এটা কি আমাদের ইচ্ছের উপর নির্ভর করে? নাকি আমরা বাধ্য হয়ে পাইরেটেড সফটওয়্যার চালাচ্ছি? আসুন প্রথমে কম্পিউটারের ভিত্তি বা অপারেটিং সিস্টেম সফটওয়্যার নিয়ে আলোচনা করা যাক।

বেশিরভাগ মানুষই পাইরেটেড উইন্ডোজ ব্যবহার করে থাকেন কারণ হয় তারা উইন্ডোজে অতি অভ্যস্ত অথবা বাধ্য হয়ে উইন্ডোজ ব্যবহার করেন। অন্যদিকে বিনামূল্যের লিনাক্সে যেসব কাজ করা যায় তা প্রায় সব শ্রেণীর সাধারণ মানুষের জন্যই যথেষ্ট বলা যায়। একজন সাধারণ পিসি ব্যবহারকারী কম্পিউটারে যেসব কাজ করে থাকেন তার প্রায় সবই লিনাক্সে করা যায়। কিন্তু তবু মানুষ লিনাক্সে আসতে না চাওয়ার অল্প কয়েকটি কারণের মধ্যে অন্যতম হচ্ছে কিছু কিছু ক্ষেত্রে উইন্ডোজ ছাড়া কাজ না চলা। নিজের উদাহরণগুলো লক্ষ্য করুনঃ

ইন্টারনেট সংযোগ

যারা ল্যাপটপ দিয়ে ইন্টারনেট ব্যবহার করেন তাদের মধ্যে সম্প্রতি ওয়াইম্যাক্সের জনপ্রিয়তা বেশ বেড়েছে। না বাড়ার কোনো কারণ নেই। মাত্র কিছু টাকার পার্থক্যের জন্য কেউ ২.৫ জেনারেশনের ইন্টারনেট ব্যবহার করবে না। তাছাড়া কিছু সমস্যার কথা বাদ দিলে ওয়াইম্যাক্স কোম্পানিগুলো মোটামুটি ভালোই সেবা দিচ্ছে। কিন্তু ল্যাপটপে ব্যবহারকারীরা পোর্টেবিলিটির কথা ভেবে সাধারণতই ছোট ডঙ্গল বা ইউএসবি মডেমের প্রতি ঝুঁকেন। আর সমস্যাটা এখানেই। এসব ইউএসবি মডেম লিনাক্স সাপোর্ট করে না। তাই এখানে একজন ব্যবহারকারী যদি সিদ্ধান্ত নেয় যে তিনি পাইরেটেড উইন্ডোজ ব্যবহার করবেন না, জেনুইন উইন্ডোজ কেনার সাধ্য নেই তাই বলে পাইরেটেড ব্যবহার করতেন কিন্তু লিনাক্সে তার কাজ চলে যায় তাই তিনি লিনাক্স ব্যবহারের সিদ্ধান্ত নিলেন। কিন্তু তিনি আটকে যাচ্ছেন ইন্টারনেট সংযোগ নিয়ে। তিনি ওয়াইম্যাক্স ব্যবহার করতে পারছেন না লিনাক্সে। সুতরাং, রীতিমতো বাধ্য হয়েই তাকে পাইরেটেড উইন্ডোজ ব্যবহার করতে হচ্ছে।

ওয়ার্ড প্রসেসিং সফটওয়্যার

যেকোনো কম্পিউটার ট্রেনিং সেন্টারে ঢুকলেই দেখবেন তারা মাইক্রোসফট অফিস স্যুট শেখাচ্ছে। কোনো সন্দেহ নেই তাদের অফিস কপিটিও জেনুইন নয়, পাইরেটেড ভার্সন। আমার কথা হচ্ছে, কেন? বাংলাদেশের সিংহভাগ মানুষ অরিজিনাল সফটওয়্যার কিনে ব্যবহারের সাধ্য রাখেন না তাই বলে চুরি করে ব্যবহার কেন করতে হবে? যদি এসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে শুরু করে অফিস আদালতেও বিনামূল্যের ওপেন-অফিস ব্যবহার শুরু করে, কেউ কি না করবে? অন্তত ওপেন-অফিস বা লোটাস সিম্ফোনি দিয়ে ওয়ার্ড প্রসেসিং, স্প্রেডশিট, প্রেজেন্টেশন ইত্যাদির কাজ বেশ ভালোভাবেই করা যায়।

তবে মাইক্রোসফট ওয়ার্ড দিয়ে তৈরি করা অনেক ফরম্যাটিংসহ কোনো ডকুমেন্ট ওপেন-অফিসে প্রায়ই ঝামেলা করে। একই ঘটনা উল্টোভাবেই ঘটে। তাই যারা অফিস কিনতে পারেন না, তারা যে স্বেচ্ছায় বিনামূল্যের লিগ্যাল সফটওয়্যার ব্যবহার করবেন সেই উপায়ও আমরাই রাখছি না। আমাদের দেশের ৯০ শতাংশ কম্পিউটার পাইরেটেড সফটওয়্যারে বোঝাই হবে না তো কী হবে?

ADs by Techtunes ADs

দুর্দশা

এই পোস্ট লেখার পেছনে অন্যতম কারণ হচ্ছে আমি নিজে পাইরেটেড উইন্ডোজ ব্যবহার করে শান্তি পাচ্ছি না তাই লিনাক্সে যাবার চিন্তা করছি। আমি বহুদিন ধরেই উবুন্টু ব্যবহার করে আসছি। কিন্তু ল্যাপটপে কিছুতেই উবুন্টু চালাতে পারছি না কেবল মাত্র এই কিউবি ইউএসবি মডেম সাপোর্ট করছে না বলে। খুঁজলে এমন আরো অনেক আগ্রহী লিনাক্স ব্যবহারকারী পাবেন যারা তাদের ডঙ্গল সাপোর্ট করে না বলে লিনাক্স চালাতে পারছেন না।

তাই তাদের মতো আমাকেও রীতিমতো বাধ্য হয়েই পাইরেটেড সফটওয়্যার ব্যবহার করতে হচ্ছে। তো বলুন কীভাবে আমার দেশের মানুষ পাইরেটেড সফটওয়্যার ব্যবহার না করে থাকবে?

ওয়াইম্যাক্স কোম্পানিগুলোর প্রতি আহ্বান

কেবল বাংলালায়ন ও কিউবি যদি কোনো ভাবে লিনাক্সের জন্য ড্রাইভার বা এমন কোনো পদ্ধতি তৈরি করে যাতে  করে লিনাক্সে মডেমগুলো চলে, তাহলেই তারা লিনাক্সের হাজার হাজার ব্যবহারকারীকেই কেবল সাহায্য করবে না বরং দেশকে সফটওয়্যার পাইরেসির দুর্নাম থেকে বাঁচাতেও বেশ উল্লেখযোগ্য অবদান রাখতে পারবে। তাই এই দুই কোম্পানির প্রতি অনুরোধ করছি, লিনাক্সে তাদের মডেম কাজ করানোর কোনো উপায় বা ড্রাইভার তৈরি করার জন্য। পাশাপাশি যারা অ্যাডভান্সড ব্যবহারকারী আছেন তাদের প্রতিও অনুরোধ রইলো এই ডঙ্গলগুলো লিনাক্সে চালানোর কোনো উপায় বের করার জন্য চেষ্টা করতে।

সবশেষে যারা বাংলালায়ন বা কিউবির ইউএসবি মডেম ব্যবহার করতে না পেরে লিনাক্স থেকে দূরে সরে আছেন এবং বাধ্য হয়ে পাইরেটেড উইন্ডোজ ব্যবহার করছেন তারা এই পেজে লাইক করুন। এতে করে আমরা অন্তত কিউবি কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে পারবো। কেননা, কিউবি ফেসবুকে বেশ সক্রিয় ভুমিকা রাখে।

ADs by Techtunes ADs
Level 0

আমি মো. আমিনুল ইসলাম সজীব। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 12 বছর 2 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 85 টি টিউন ও 202 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 6 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

আমিও এই ওয়াইম্যাক্স এর কারণে লিনাক্সে পুরোপুরি আসতে পারছিনা।পাইরেটেড সফটওয়ার ব্যবহার করতে আমারো আর ভাল লাগে না। 😡 ক্রাক ক্রো,সিরিয়াল খুজো না পেলে নোটিফিকেশান এটা-সেটা দুনিয়ার ভেজাল।ব্রডব্যান্ড দিয়ে কিছুদিন লিনাক্স ব্যবহার করছিলাম।খুবেই ভাল কেটেছিল সময়। 🙄 ওয়াইম্যাক্স কোম্পানীগুলোর প্রতি আহ্বান যেন অতিদ্রুত তারা লিনাক্স উপযোগী মডেম বাজারে ছাড়ে।ধন্যবাদ পোস্টের জন্য। 🙂

Level 0

চমৎকার টিউন। আপনার কাছে আরো টিউন আশা করছি।

আমি সব সময় পাইরেটেড ব্যবহার করি।কিছু কিছু ক্ষেত্রে ওপেন সোর্স ব্যবহার করি।।আমার এই কথায় অনেকেই অসন্তুষ্ট হবেন,কিন্তু কিছু করার নাই।

লিনাক্স নিয়ে ধারাবাহিক চেইন টিউন চাই। যাতে করে হোম পেইজে লিনাক্সের একটা অংশও সব সময়ে দেখতে পাই।
*****লিনাক্স বিশেষজ্ঞদের দৃষ্টি আকর্ষন করছি। ********

আমি লিনাক্স নিয়মিত ব্যবহার করতে পারছি না কারন শুধু এক্টাই কিউবি!

    *****লিনাক্স বিশেষজ্ঞদের দৃষ্টি আকর্ষন করছি। ******** সহমত…

    লিনাক্স নিয়ে ধারাবাহিক টিউন লেখার মতো লিনাক্স বিশারদ এখনো হইনি। হলে হয়তো ট্রাই করতাম। 🙂

সজীব ভাই লিনাক্স সম্পকে তেমন জানিনা জানার চেষ্টা করছি ধন্যবাদ টিউন এর জন্য

    লিনাক্স বেশ মজার এবং একই সঙ্গে প্রফেশনাল জিনিস। একবার মজা পেয়ে বসলে উইন্ডোজে যেতে মন চাইবে না কিছুতেই।

আমিও ভাই পাইরেটেড ও ওপেন সোর্স করি দুইটাই ব্যবহার,
কি করব বলেন,আপনি আসলেই সত্যি কথা গুলু তুলে এনেছেন আপনার টিউনে,
আপনাকে অনেক ধন্যবাদ আপনার সুন্দর মতামতের জন্য এবং আপনার কন্ঠের সাথে কন্ঠ মিলিয়ে বলছি আপনার আহবান যেন ইন্টারনেট কোম্পানি গুলুর কান পযর্ন্ত পৌছে।

আমি সব সময় পাইরেটেড ব্যবহার করি।কিছু কিছু ক্ষেত্রে ওপেন সোর্স ব্যবহার করি।।আমার এই কথায় অনেকেই অসন্তুষ্ট হবেন,কিন্তু কিছু করার নাই।

Read more: https://www.techtunes.co/internet/tune-id/76065/#ixzz1PNEYCzUH

টিউনের সাথে ১০০ ভাগ সহমত,ওয়াইম্যাক্স কোম্পানিগুলোর এব্যাপারে একটা কিছু করা উচিত, তথ্যপূর্ণ টিউনের জন্য ধন্যবাদ।

Level 0

বেশকিছুদিন ধরে দেখছি Linux নিয়ে ভাল একটা হৈ চৈ শুরু হয়েছে, কিন্তু আফসোস, কেউ এখন পর্যন্ত এই টপিক নিয়ে ভাল কোন টিউটোরিয়াল করেনি। Linux প্রেমিদের প্রতি আহবান, কেউ অচিরেই একটি ধারাবাহিক টিউন শুরু করেন। কেননা আমার মতে বেশিরভাগ মানুষেরই Linux সম্পর্কে তেমন কোন ধারনা নেই, শুধু এইটুকুই ধারনা আছে যে এইটা একটা Open Source Operating System যার বিষেষত্ত হচ্ছে, এতে আনেক প্রয়োজনীয় কাজ করা যায় না। উল্লেখ্য, আমার নিজেরই এই বদ্ধমূল ধারনা। এই কারনে আমার Linux ব্যাহার করার কোনরকম ইচ্ছা এখন পর্যন্ত হয়নি (আর মনেহয়না ভবিষ্যতেও হবে)

    ভাই, আপনি বলেন কি কাজ করতে পারছেন না। আমি পারলে আপনাকে বাবস্থা করে দিব।

    Level 0

    কিভাবে বলি, আমিতো Linux setup দেইনি কখনও, শুধু শুনেছিমাত্র (!)
    এত কষ্ট করে windows 7 এ মোটামুটি হাফেজ হয়েছি, আর এখনকি জেনে শুনে একটা সমস্যাওয়ালা unknown os এ জেতে মন চায় বলুন? এইজন্যই বলছিলাম, কেউ যদি ধারাবাহিকভাবে জানানো শুরু করেন তাহলে একটা চেষ্টা নিতাম। এক্কেবারে না জেনে এখন যদি নতুন os এ যাই তাইলে ঐটা একটুখানি আয়োত্তে আনতে নিশ্চই সপ্তাখানিক লাগবে, কিন্ত আমার পক্ষে একটা দিনও আমার প্রয়োজনীয় কাজগুলো বন্ধ রাখা সম্ভব নয়।

    হৈ-চৈ টা অনেকদিন ধরেই। তবে এ কথা সত্যি যে অনেকেই লিনাক্স সম্পর্কে তেমন বেশি জানেন না। আমিও জানি না। কেবল নিজের প্রয়োজনটুকু লিনাক্সে গুছিয়ে নিতে পেরেছি। কিন্তু এ নিয়ে ধারাবাহিক টিউন করার মতো জ্ঞান এখনো আমার হয়নি বলেই মনে করি। ব্লগে অনেক লিনাক্স বিশারদ আছেন। আশা করছি তাদের কেউ অচিরেই লিনাক্স নিয়ে ধারাবাহিক টিউন শুরু করবেন।

    Triple A ভাই আমাদের এই টেকটিউনসেই লিনাক্স এর জন্য অনেক রিসোর্স আছে।
    আপনাকে কিছু টেকটিউনসের লিঙ্ক দিচ্ছিঃ

    [উবুন্টু টিউটরিয়াল] আলাদা পার্টিশন করে ধাপে ধাপে উবুন্টু ইন্সটলঃ https://www.techtunes.co/linux/tune-id/23801/

    [উবুন্টু টিউটরিয়াল] সবচেয়ে জরুরী বিষয় – উবুন্টুতে ইন্টারনেট কানেকশন কনফিগারঃ https://www.techtunes.co/linux/tune-id/28016/

    মোবাইল হতে লিনাক্সে EDGE/GPRS ব্যবহার করার সহজ উপায়ঃ https://www.techtunes.co/linux/tune-id/5058/

    উবুন্টু/মিন্টে কিছু ব্যাকআপ সফটওয়্যার পার্ট ১:Aptoncd : https://www.techtunes.co/linux/tune-id/31175/

    উবুন্টু/ মিন্টে অভ্র ফনোটিকে বাংলা লেখার পেইনলেস উপায়ঃ https://www.techtunes.co/linux/tune-id/30442/

    নিচের এই লিঙ্ক থেকে লিনাক্স রিলেটেড আরও রিসোর্স পাবেন
    https://www.techtunes.co/category/linux/page/1

    আমার মতে যারা লিনাক্স এ আসতে চান তাদের প্রথমে লিনাক্স মিন্ট(ডিভিডি) ইউজ করা উচিৎ।
    কারন এইখানে সাধারন ইউজার দের জন্য যা যা দরকার তার প্রায় সব কিছুই ইন্সটল থাকে।

    Level 0

    ফাহাদ ভাই, আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ

মো. আমিনুল ইসলাম সজীব ভাই আপনার এই কথা টা শুনে আমার খুব ভাল লাগল।

" যদি এসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে শুরু করে অফিস আদালতেও বিনামূল্যের ওপেন-অফিস ব্যবহার শুরু করে "

আমাদের সরকারের শুভ বুদ্ধির উদয় হোক।

আসলেই আপনাদের কথা শুনে আমি নির্বাক নিস্তব্ধ।

আর আমি কিছুদিন আগে বাংলা-লায়ন এর ইউএসবি ডঙ্গল এর লিনাক্স এর জন্য সফটওয়্যার খুজছিলাম।

সেখানে জানতে পারি যে এই এইগুলো কোন স্ট্যান্ডার্ড মেনে করা হয়না। আর তাই এই কিউবি আর বাংলা লায়ন এর ইউএসবি ডঙ্গল গুলোর কোন ড্রাইভার লিনাক্স/উবুন্টু এর জন্য পাওয়া যায়না।

আমাদের কোম্পানি গুলোর উচিৎ একটা স্ট্যান্ডার্ড জিনিস আমদানি করা।

আমাদের দেশের সরকারেরাও এর জন্য ব্যবস্থা নিতে পারে। তাদের উচিৎ এইসবের জন্য একটা স্ট্যান্ডার্ড ঠিক করে দাওয়া এবং সেইটা ঠিকমতো মনিটর করা।

কারণ এইটার সাথে আমাদের দেশের (আমাদের সবার) সম্মান জড়িত।

    সেটাই। আমাদের সবাই বলে চুরি করতে ওস্তাদ। কিন্তু আমরা এমনই একটা দেশে থাকি যে বাধ্য হয়ে চুরি করতে হয়। সদিচ্ছা থাকলেও চুরি ছাড়ার উপায় নেই।

সজিব ভাই, সুন্দর টিউনের জন্য ধন্যবাদ।
আপনার ব্যক্তিগত ব্লগ সম্পর্কে একটা দুঃসংবাদ শুনছি। সমাধান হয়েছে?

    নাহ। ডোমেইনটা হারিয়েছি। 🙁

    তাহলে ঠিকই শুনছি, 🙁 শুধু মাত্র দুঃখ প্রকাশ করা ছাড়া আর কিছুই করার নেই।
    ডাটাবেজ ব্যাক আপ আছে? তাহলে অন্তত ইউজার এবং কন্টেন্ট গুলো পাবেন।

Use Ubuntu 11.4 DVD.

Level 0

সহমত

………

এদেরকে যে কি করতে ইচ্ছা করে !? X(

আমার জুম আল্ট্রা ভালোই চলে। 🙂

আমারো এক সমস্যা। বাংলালায়ন ওয়াইম্যাক্সের ড্রাইভার নাই লিনাক্সে

red hat এর command এর কোনও ব্লগ আছে

Level 0

বলাটা হয়ত ভুল হবে কিনা জানিনা আর এত কিছু ভাবার সময় নেই। আপনার যারা ওয়াইম্যাক্স মডেম লিনাক্সে ব্যবহার করতে পারছেন না তারা দয় করে আমাকে একটু জানাবেন যে মডেম টা আসলে কি মডেম বা ওটার মডেল কিংবা নাম কি? বিস্তারিত জানাবেন। আমি ব্রডব্যান্ড ব্যবহার করি তাই বলতে পারছিনা। আর তাছারাও আমাদের এলাকায় এখনও ওয়াইম্যাক্স আসে নাই।

ভাই ভালো টিউন, কিন্তু প্রশ্ন হল Microsoft কত কোটি পিসি ইউজারকে আইনের সামনে আনতে পারবে? তা তাদের যথেষ্ট ভেবে দেখতে হবে। আমাদের নিরুপায় হয়ে মাইক্রোসফট উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করতে হয়। বাংলাদেশের কোন ক্র্যাকার তাদের সফটওয়্যার ক্র্যাক করছে না; বরং চায়না, মালয়েশিয়া সহ বহু দেশ তাদের সফটওয়্যার ক্র্যাক/প্যাচ করে যা আমরা ইউজ করি। স্বয়ং আমেরিকাতেই তো বহু ক্র্যাকার আছে যাদের টার্গেটই হচ্ছে নতুন নতুন সফটওয়্যার ক্র্যাক করা। আমি ভাই পাইরেটেড সফটওয়্যারের পক্ষে নই; কিন্তু বড়ই দুঃখের সাথে ক্র্যাকের মধ্য পড়ে ক্র্যাকড সফটওয়্যার ব্যবহার করতে হয় (যা আমাদের পিসির জন্যও হুমকি স্বরূপ কারণ এইসব ক্র্যাকের মধ্যে বেশিরভাগেই ব্যাকডোর, ট্রোজান সহ নানান রকম ফাঁদ থাকে), যেটা আমাদের কারোরই কাম্য নয়। আশা করছি লিনাক্স নিয়ে ডুয়েল বুটিংয়ে যাব। তারপর পুরোপুরি লিনাক্সে। কিন্তু ভাই সব কিছুর সাথে অল্পস্বল্প গেমসও খেলি (কিছু গেমস শুধু উইন্ডোজেই চলে) বিধায় উইন্ডোজকে পুরোপুরি বিদায়ও জানাতে পারছি না। ভালো টিউন করেছেন আশা করি আমরা যেন আস্তে আস্তে পাইরেসির পথ থেকে ওপেন সোর্সের পথে আসতে পারি।
ধন্যবাদ 🙂

    মাইক্রোসফট উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেমেও যে ব্যাকডোর নেই সেটা কে জানে? এটা নিয়েও বেশ কিছুদিন আগে অনেক হইচই হয়েছিল।
    ধন্যবাদ 🙂

    @সানি৯৯৯৯উইন্ডোজ এর প্রায় সব গেমস লিনাক্স এ খেলা জায় wine ইন্সটল করে… চেষ্টা করে দেখতে পারেন।