ব্যাকলিঙ্ক সম্পর্কে নতুন ব্যবহারকারীদের উপযোগী সাধারণ ধারণা

আসসালামুয়ালাইকুম। সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন সম্পর্কে বেশ কিছু চেইন টিউন কিছুদিন আগেও নিয়মিত দেখা যাচ্ছিল। কিন্তু সেসকল টিউনার হয়তোবা কোন কারণে সাময়িক ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন তাই টিউন করতে বিলম্ব হচ্ছে। তবে আশা করি সেগুলো যাতে বন্ধ না হয়, টিউনারদের চেইন টিউনগুলো কন্টিনিউ করার অনুরোধ জানাচ্ছি। বেশ কয়েকদিন এসইও রিলেটেড টিউন না হওয়ায় এর প্রয়োজন অনুভব করলাম, কিন্তু লেখার জন্যে টপিক খুজে পাচ্ছিলাম না, তাই ভাবলাম যারা নতুন তাদেরকে ব্যাকলিঙ্ক সম্পর্কে সাধারণ একটা ধারণা দিলে তেমন মন্দ হয়না। তাই বসে পড়লাম লিখতে।

ইন্টারনেটের সুবাদে যারা এখন ওয়েবসাইট বা ব্লগের মালিক তারা আশা করি নিশ্চই ব্যাকলিঙ্ক শব্দটির সাথে পরিচিত। অনেকে পরিচিত নাও থাকতে পারেন, এমন অনেকেও হয়তোবা আছেন যারা জানেন এ সম্পর্কে কিন্তু ধারণা ভাসাভাসা। আমার টিউনটি তাদের উদ্দেশ্যেই করা। এডভান্সড লেভেলের কেউ তেমন উপক্রিত হবেন না, কারণ এই টিউনে শুধু সাধারণ জ্ঞান দেয়া হবে এই টপিকে।

ব্যাকলিঙ্ক আসলে কি?

ব্যাকলিঙ্ক কি?

সার্চ ইঞ্জিনে একটি সাইটের র‍্যাঙ্কিং এর জন্যে বেশ কিছু বিষয় কাজ করলেও প্রধান দু'টি বিষয় হলো
১.অন পেজ অপটিমাইজেশন এবং ২.অফ পেজ অপটিমাইজেশন।

অন পেজ অপটিমাইজেশন নিয়ে সজীব ভাইয়ের এই টিউনটি দেখতে পারেন। এই টিউনে অন পেইজ অপটিমাইজেশন নিয়ে বিস্তারিত না বলে সরাসরি মূল কথায় চলে যাই। অফ পেইজ অপটিমাইজেশন এর প্রধান অংশ ব্যাকলিঙ্ক।

যখন অন্য কোন ওয়েবসাইট থেকে আপনার ওয়েবসাইটকে লিঙ্ক করা হবে তখন তা ব্যাকলিঙ্ক হিসেবে গণ্য হবে। আর এই ব্যাকলিঙ্ক আপনার জন্যে ভোটস্বরূপ। অর্থাৎ যেই ওয়েবসাইট আপনার ওয়েবসাইটকে এক বা একাধিক লিঙ্ক দিবে তা আপনার জন্যে ব্যাকলিঙ্ক হিসেবে গণ্য হবে। এর মানে হলো যে সাইট আপনাকে লিঙ্ক দিয়েছে তাদের চোখে আপনার সাইটের ভ্যালু আছে। তো সাধারণ কথায় যখন একটি সাইট অপর একটি সাইটের দিকে লিঙ্ক করে তাই সাধারণত ব্যাকলিঙ্ক।

ইন্টারনেটে কিছু সাইট আছে যেগুলো থেকে প্রাপ্ত ব্যাকলিঙ্ক আপনার জন্যে অনেক উপকার বয়ে নিয়ে আসবে। উদাহরণ স্বরূপ যেসকল ওয়েবসাইট অধিক পেইজর‍্যাঙ্ক এর অধিকারী এবং বেশ জনপ্রিয় সেগুলোর থেকে প্রাপ্ত ব্যাকলিঙ্ক সার্চ ইঞ্জিনে আপনার পজিশনের উন্নতি ঘটাবে। যেমন ধরুন অ্যামাজন ডট কম, ইজিন আরটিকেলস ডট কম ইত্যাদি। এসব ওয়েবসাইট থেকে প্রাপ্ত ব্যাকলিঙ্ক প্রচুর ভ্যালু বহন করে।

তবে আপনাকে মনে রাখতে হবে যে সকল সাইট থেকে প্রাপ্ত লিঙ্কই আপনার জন্যে ব্যাকলিঙ্ক হিসেবে গন্য হবেনা। আমি হয়তোবা ভাবতে পারেন "আপনিই তো বললেন যে কোন সাইট থেকে লিঙ্ক পেলেই সেটা ব্যাকলিঙ্ক।" হুম সাধারণ অর্থে সেটাই সঠিক, কিন্তু আজকাল অনেক সাইট লিঙ্কে নো-ফলো ট্যাগ ব্যবহার করে যা সার্চ ইঞ্জিন ক্রওলার বা সার্চ ইঞ্জিন বটকে লিঙ্ক করা ওয়েবসাইটে যাওয়া থেকে বিরত রাখে, যার মানে দাঁড়ায় তা ব্যাকলিঙ্ক হিসেবে গণ্য হবে না। এই নো-ফলো ট্যাগ ব্যবহার করা হয় স্প্যামিং বন্ধ করার উদ্দেশ্যে। কিন্তু এক্ষেত্রে খুশির বিষয় এই যে, আপনি যদি গুগল ওয়েবমাস্টারস টুলস ব্যবহার করে থাকেন তবে হয়তো লক্ষ করেছে আজকাল নো-ফলো লিঙ্কও গুগল বট ইন্ডেক্স করে, অর্থাৎ গুগল সেটাকেও হয়তো ব্যাকলিঙ্ক হিসেবে ধরছে আজকাল।

সব লিঙ্ক একই রকম ভ্যালু বহন করে না। আপনি যদি ৫০ টি শুন্য পেইজ র‍্যাঙ্ক সহ ওয়েবসাইট থেকে লিঙ্ক পান এবং একটি পেজ র‍্যাঙ্ক এক সহ ওয়েবসাইট ঠেকে লিঙ্ক পান কখনোই তা সমান হবে না। তবে এক্ষেত্রে কিন্তু পেজ র‍্যাঙ্ক এক থেকে প্রাপ্ত লিঙ্কের দাম বেশি হবে। কারণ যে সাইটের পেজ র‍্যাঙ্ক এক তার মানে হলো সে বেশ অনেক গুলো ভোট তথা ব্যাকলিঙ্ক পেয়েছে এবং সেটা আপনার দিকে লিঙ্ক ব্যাক করেছে সেক্ষেত্রে সেই সাইটের কিছুটা লিঙ্ক জুস আপনি পাবেন। ফলে সেটা পেইজ র‍্যাঙ্ক শুন্য ব্যাকলিঙ্ক থেকে বেশি দাম বহন করবে।

উপরে সংক্ষেপে ব্যাকলিঙ্ক সম্বন্ধে ধারণা দেয়ার চেষ্টা করেছি। কতটুকু বোঝাতে সক্ষম হয়েছি জানিনা। তাই কোন সমস্যা বা প্রশ্ন থাকলে কমেন্টে জানাতে ভুলবেন না। আর টিউন কেমন লাগলো সেটাও জানাবেন আশা করি।

Level 0

আমি ডিজে আরিফ। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 10 বছর 10 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 60 টি টিউন ও 1484 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 0 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।

আমি আরিফ, সাধারণ একজন আরিফ! চাই অসাধারণ কিছু করতে, সম্ভব কিনা জানিনা কিন্তু ইচ্ছাশক্তির বলে অনেক কিছুই করতে চাই। ব্লগিং - এর সাথে পরিচয় খুব বেশি দিনের না, তবুও বিষয়টাকে ব্যাপকভাবে উপভোগ করছি। ভালো মানের ব্লগার হওয়ার ইচ্ছা আছে। বর্তমানে আমি দশম শ্রেণীতে ঢাকার স্বনামধন্য বিদ্যালয়ে পড়ালেখা করছি।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

হুম, সুন্দর সুন্দর। 😛

    তো আপনার নতুন সাইটের চিন্তা-ভাবনা কতদূর হলো?

Level 0

অনেক সুন্দর হয়েছে ডিজে ভাই।

ভাই আপনাকে অনেক ধন্যবাদ সুন্দর একটি লেখা উপহার দেবার জন্য। আশাকরি আপনি আপনার লেখা চালিয়ে যেতে থাকবেন।
আমার কিছু প্রশ্ন ছিল। যদি দয়া করে আপনি বা অন্যকেউ উত্তরগুলো দেন তাহলে খুবই উপকৃত হব।
১. সাধারণত ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে যে সকল ব্লগ তৈরী করা হয়, সেখানে মন্তব্য করার সময় যদি ওয়েবসাইটের এড্রেস দেই, তাহলে কি সেটা ব্যাক লিংক হিসাবে গন্য হবে?
২. ওয়ার্ডপ্রেস, ব্লগস্পট ইত্যাদি ফ্রি ব্লগ সাইটগুলার ব্লগে যদি লিংক থাকে, তাকি কোন উপকারে দিবে?
৩. কয়েকটি হাই পেজর‍্যাংকওয়ালা ব্লগ বা ফোরামের এড্রেস কি আমাদের জন্য প্রোভাইড করতে পারেন যেখানে রিভিউ লেখা যাবে?
আর পেজ র‍্যাঙ্ক বাড়ানোর কৌশলগুলি নিয়ে যদি লেখে তাহলে আমরা সবাই খুবই উপকৃত হব। আপনাকে আবারও ধন্যবাদ।

    আপনার প্রশ্নগুলোর উত্তর-
    ১.না, কারণ ওয়ার্ডপ্রেসে কমেন্ট করলে তা নো-ফলো ট্যাগ ব্যবহার করে, তাই তা ব্যাকলিঙ্ক হিসেবে গণ্য হবে না, তবে আজকাল গুগল নো-ফলোকেও গুরুত্ব দিচ্ছে।
    ২.অবশ্যই উপকারে দিবে, তবে খেয়াল রাখবেন তা যেন স্প্যামিং না হয়
    ৩.আসলে রিভিউ আপনাকে বেশির ভাগ সাইটই লিখতে দিবে না, নেটে ঘাটলেই বেশ কিছু পেয়ে যাবেন। ফোরামে রেজিস্ট্রেশন করেই যদি রিভিউ লেখেন তাহলে সেটা স্প্যামিং হিসেবে গন্য হবে, পরিপ্রেক্ষিতে আপনি ব্যান হতে পারেন। রেজিস্ট্রেসন করে বিভিন্ন পোস্টে কমেন্ট করুন, দরকারী পোস্ট করুন, এরপর আস্তে আস্তে রিভিউ পাবলিশ করুন। আপনি নেটে খুজলেই পেয়ে যাবেন আপনার কাঙ্খিত নিশ [কি-ওয়ার্ড] এর ফোরাম… আর পেজ র‍্যাঙ্ক বাড়ানোর জন্যে ব্যাকলিঙ্ক বৃদ্ধি করাই যথেষ্ট, তবে ভবিষ্যতে এ নিয়ে বিস্তারিত টিউন করার ইচ্ছা আছে…

    অনেক কিছু জানলাম।

ব্যাকলিংক বিল্ডিং অনেক কঠিন আর বিরক্তিকর।তবে সময় নিয়ে কাজ করলে এর সুফল পাওয়া যায়।ধন্যবাদ ব্যাকলিংক সম্পর্কে জানানোর জন্য।

    ভালো কিছু পেতে হলে কষ্ট তো করতেই হবে… 😉

টিউন বরাবরের মত ভালো…………….ডিজজজজজজজজজজজজজজজজজজে ভাই

ভাই আপনাকে আবার প্রশ্ন করি, যদি ওয়ার্ডপ্রেসের ফ্রী সাইটইগুলার সাইড লিংক বা ব্লগরোলে যদি লিংক থাকে সেইগুলা কি ব্যাকলিংক হিসাবে গন্য হবে? আর এই সাইটগুলাতে যদি ৫০-৫০০ ওয়ার্ডের পোষ্ট থাকে এবং তাতে আমার সাইটের লিংক থাকে তাহলে কি তা ব্যাকলিংক হিসাবে গন্য হবে? আর আমার বিশ্বাস এইগুলা ডু ফলো হয়, কারণ মাইক্রো ওয়ার্কাসে আমি অনেক জব করেছি যার কিছু থাকে পোষ্টে লিংক দেওয়া এবং ব্লগরোল গুলাতে লিংক এড করা। কিন্তু আমার প্রশ্ন হল ফ্রী সাইটগুলাতে দিলে কাজ হবে কিনা, এবং যদি হয় তাহলে ঐ ওয়েব সাইটের মালিকরা কেন ফ্রী ব্লগে পোষ্ট দিলে টাকা দেয় না? জানাবেন।

ভালো হয়েছে… 🙂

Level 0

vai ekta confusion e asi doya kore answer diben. Backlink google, bing, yhaoo eigulote alada hoi keno? dekha jai google e jodi 10 ta backlink hoi bing e backlink 500 r yahoo 30. Etar mane ki?