ADs by Techtunes ADs
ADs by Techtunes ADs

বিজয় বায়ান্ন :: বিজয়ের ইউনিকোড ভিত্তিক বাংলা টাইপিং সফ্টওয়্যার

logo.jpgবিজয় আমাদের খুবই পরিচিত সফ্টওয়্যার, বাংলা লেখার জন্য । আজ আমি আপনাদেরকে বিজয়ের নতুন সংস্করণ "বিজয় বায়ান্ন" সর্ম্পকে আইডিয়া দেব। আপনারা হয়তো অনেকেই জানেন, বিজয়ের এই নতুন ভার্সনটিতে ইউনিকোডে বাংলা এবং নন-ইউনিকোডে বাংলা, উভয়ই টাইপ করা যায়। মার্কেটে বা ওয়েবে অনেক নামের ও ধরণের বাংলা টাইপিং সফ্টওয়্যার পাওয়া যায়। বেশিরভাগ ইউনিকোড ভিত্তিক সফ্টওয়্যারগুলোই ফ্রি। কিন্তু বিজয় হলো বিজয়। আপনি যদি অন্য কোন সফ্টওয়্যার ব্যবহার করেন বাংলা টাইপের জন্য, তবে আপনাকে নতুন ধরণের লেআউট শিখতে হয় এবং সেই সাথে আরও অনেক কিছু শিখতে হয়। বিজয় বায়ান্ন আপনার সেই ধারণাকে বদলে দেবে।

ADs by Techtunes ADs

বিজয় বায়ান্ন নিচের অপারেটিং সিস্টেম গুলোকে মাথায় রেখে ডিজাইন করা হয়েছে::

> উইন্ডোজ ২০০০ (সকল সংস্করণ)
> উইন্ডোজ ২০০৩ সার্ভার (সকল সংস্করণ)
> উইন্ডোজ এক্সপি (সকল সংস্করণ)
> উইন্ডোজ ভিস্তা (সকল সংস্করণ)
> উইন্ডোজ ২০০৮ সার্ভার (সকল সংস্করণ)

বিজয় বায়ান্ন আসলে ব্যবহার করা খুবই সহজ। বলতে গেলে আপনাকে কোনো ধরণের কনফিগার করার কষ্টটুকু করতে হবেনা। আগে যেমন আপনাদের বলেছি, বাজারে বাংলা টাইপ করার অনেক সফ্টওয়্যার রয়েছে, যেগুলো ব্যবহার করতে হলে আপনাকে নতুন ধরণের লেআউট শিখতে হবে এবং সেই সাথে আরও অনেক কিছু শিখতে হবে। কিন্তু বিজয় বায়ান্নর জন্য আপনাকে আর কোন কষ্ট করতে হবেনা। এর সাথে সংযুক্ত সবগুলো কনফিগারেশন ইন্সট্রাকশন মোস্তাফা জব্বার নিজে বাংলায় তৈরি করেছেন এবং এগুলো অনুসরণ করা বলতে গেলে খুবই সহজ।

আপনারা অনেক বাংলা টাইপিং সফ্টওয়্যার হয়তো ইতোমধ্যে ব্যবহার করেছেন। ফ্রি সফ্টওয়্যার গুলো ইন্টারনেটে পাওয়া যায় অহরহ, যেগুলো দিয়ে আপনি বাংলা টইপ করতে পারবেন ঠিকই, কিন্তু তারা টাইপ করার জন্য কিছু ইন্সট্রাকশন পরিবর্তন করে দিয়েছে। যেমন হয়তো আপনাকে প্রথমে "এ কার" এবং পরে "ক" দিতে হবে "কে" টাইপ করার জন্য। কিন্তু বিজয়তে এধরণের কোন পরিবর্তনই করেনি, শুধু নতুনত্ব এসেছে লেখার ক্ষেত্রে। আপনি ইউনিকোড/নন-ইউনিকোড ভিত্তিক যেকোন বাংলা টাইপ করতে পারবেন আগের সেই পুরনো বিজয় স্টাইলে।

আপনারা যদি বাজার থেকে বিজয় বায়ান্ন-এর সিডি কেনেন, তার মধ্যে পাবেন "বিজয় টাইপিং টিউটর", "ব্রুশিওর", "বিজয় বায়ান্ন-র সিডির স্ক্যান করা কভার", "কিছু ব্যববহারিক গাইড", "রিসোর্সেস", "ইন্সটলার" এবং "সিরিয়াল কী" এবং "অন্যান্য"।

মার্কেট থেকে কেনা সিডিতে আপনি পাবেন মাত্র ২৬ টি ফন্ট। ফন্টগুলোকে ব্যবহার করার জন্য শুধু ফন্টগুলোকে আপনার C: ড্রাইভের Windows>Fonts ফোল্ডারে কপি করে নিলেই হবে। আর যে বিজয় টাইপিং টিউটর টি সিডিতে আছে, সেটি বাজারে পাওয়া একমাত্র বাংলা টাইপিং টিউটর।

আপনার যদি কোন প্রশ্ন/মন্তব্য থাকে, তাহলে এখানে বা আমাকে ব্যক্তিগত ভাবে জানাতে পারবেন [email protected] অথবা [email protected] -এ।

ধন্যবাদ

জিকো

ADs by Techtunes ADs

 www.zicobaby.tk
* কপিরাইট, পেটেন্ট, ডিজাইন এবং ট্রেডমার্ক -- মোস্তাফা জব্বার কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত।

ADs by Techtunes ADs
Level 0

আমি zicobaby। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 12 বছর 1 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 6 টি টিউন ও 36 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 0 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

আপনি যে সফটওয়্যারটি দিচ্ছেন সেটি কি ফ্রি ভার্সন? যদি না হয় তাহলে এটি ব্যবহার করা কি ঠিক হবে?

আপনি যদি পুরাতন সিস্টেম এ টাইপিং এ অভ্যস্ত হয়ে থাকেন তাহলে অভ্র সফটওয়্যারে কিন্তু সেটি সম্ভব অর্থাৎ আগে ে-কার পরে অক্ষর টাইপ করা। এজন্য সেটিংসটি পরিবর্তন করে নিলেই হয়।

আর অভ্র কি বোর্ডের জন্য নতুন ভাবে আই-কমপ্লেক্স নামে একটি ছোট সফটওয়্যার অভ্র পোর্টেবল এডিশন এর সাথেই দেয়া আছে-যেটিতে ডাবল ক্লিক করলেই বাংলা ইউনিকোডের জন্য সব ধরনের ল্যাঙ্গুয়েজ সেটিংস উইন্ডোজে অটোমেটিক হয়ে যায়। সুতরাং সেটিংস এর জন্য কোন ম্যানুয়াল এখন দরকার হয় না।

এছাড়া আপনি অভ্র পোর্টেবল এডিশন ইন্সটল না করেই ব্যবহার করতে পারেন পেন ড্রাইভ থেকে। সুতরাং সবচেয়ে বেশী ফ্লেক্সিবিলিটি পাচ্ছেন। আর হার্ডডিস্কে রাখতে চাইলে এটি শুধুমাত্র পেন ড্রাইভ থেকে হার্ডডিস্কে কপি করুন এবং আই কমপ্লেস্ক দিয়ে সেটিংস ইন্সটল করে নিন। ব্যস হয়ে গেল।

আপনার এই ফাইলে ভাইরাসে ভরা।

Level 0

@ সুমন

না, এটি কোন ফ্রি ভার্সন নয়। এটি জেনুইন ভার্সন।
আমি অভ্র বা বিজয়, কোনটাই চালাইনা, প্রকৃতপক্ষে আমি সান সোলারিস ব্যবহার করছি, যেখানে আমি বাংলা ফোনেটিক প্রভাত ব্যবহার করি।
সুতরাং, কিভাবে কি হয়, এ বিষয়ে আমি বেশ ভালোভাবেই ওয়াকিফহাল। আর আমি চিন্তা করি, সবাই অভ্র বা ফোনেটিক চেনে না। তারা চেনে বিজয়কে বাংলা লেখার সফ্টওয়্যারকে। তাই যারা নেট থেকে জেনে বা পড়ে অভ্র ব্যবহার করছেন, তাদের সংখ্যা বিজয় ব্যবহারকারীদের সংখ্যার কাছাকাছি না যেতে পারলেও নেহায়েত কম নয়। সুতরাং, সাধারণ মানুষ অভ্র না বিজয় না প্রভাত ব্যবহার করবে, সেটি তাদের ওপরেই ছেড়ে দিলে ভালো হবে।

আমি সাধারণ মানুষের কথা ভেবে পোষ্ট লিখি। কোন বিশেষ শ্রেণী বা গোষ্ঠীর জন্য নয়। আমি শুধু একটা কথাই বিশ্বাস করতে চাই, প্রযুক্তি গ্রহণে দেরী করলে দেশ পিছিয়ে যাবে।
সুতরাং যে যে প্রযুক্তি গ্রহণ করে স্বাচ্ছ্যন্দ বোধ করেন, তিনি যেন সেটাই ব্যবহার করেন, অন্য নতুন ও আধুনিক প্রযুক্তি গ্রহণ করতে গিয়ে যেন দেরী না হয়ে যায়।

@ microqatar

ভাই, ভাইরাসে ভরা কিনা জানি না, কারণ আমি যে প্লাটফর্ম ব্যবহার করছি, সেখানে এধরণের কোন টার্ম নেই। আমি আমার অভিজ্ঞতা থেকে বলি, আমি ACDSee 8.0 এর জন্য যে প্যাচ ফাইল ব্যবহার করতাম, এভিজি ৮.০ এবং ম্যাকফি তাকে ভাইরাস হিসেবে ডিটেক্ট করতো। অথচ সেই প্যাচ যদি ব্যবহার না করি, তাহলে আমাকে ACDSee 8.0 এর ট্রায়াল ভার্সন ব্যবহার করতে হতো। বলুন, এর সমাধান কি ??? এমনকি নরটন ইন্টারনেট সিকিউরিটি ২০০৮ -এর যে প্যাচ, তাকে নরটন নিজেই ভাইরাস বলে !!! চাইলে আমি আপনাকে দেখার জন্য পুরো “নরটন ইন্টারনেট সিকিউরিটি ২০০৮” দিতে পারি, যেখানে নেটওয়ার্ক ডিটেক্টের মতো অনেক নতুন নতুন ফিচার আছে।

সুতরাং, আপনাদের যদি অ্যান্টি-ভাইরাসের ওপর যথেষ্ট ভরসা থাকে, তাহলে তাদের কথা মানতে পারেন, অথবা নিজের মতো করতে চলতে শুরু করতে পারেন।

ধন্যবাদ সবাইকে, আমার পোষ্ট পড়ার জন্য।

zicobaby ভাই সাহেব, আপনি যার ( জব্বার কাকু) বাংলা ইন্টারফেস সফটটা আপলোড করেছেন , উনি জানতে পারলে কিন্তু এই সাইট এবং আপনাকে র‍্যাব এর হাতে তুলে দিবে। ইতিপূর্বে ইউনিজয় কী বোর্ড লে-আউট চালু করার কারনে উনি এই রকম হুমকি দিয়েছেণ। আমি আপনার মঙ্গল কামনা করছি।
আমি ক্যাসপার স্ক্যাই এর অরজিনাল ভার্শন ( নিজের টাকায় কেনা) ব্যবহার করি, যা প্রতিনিয়ত আপটেড হয়, স্বয়ংক্রিয় ভাবে। তাছাড়া স্পাইওয়্যারের প্রটেক্টশন আছে।
এটা ঠিক, এক এন্ট্রিভাইরাস যাকে ভাইরাস হিসাবে চিহ্নিত করে অন্য আরেক্রটা এন্ট্রিভাইরাস তা নাও করতে পারে। যেমন, আমার এন্ট্রিভাইরাস এতোদিন যেসব ফাইলগুলো কে নরমাল বলে চিহ্নিত করতো, স্পাইওয়্যার র্টামিনেটর কিন্তু সেইসব ফাইল হতে ঠিকই ম্যালও্য়্যার, এডও্য়্যার বলে চিহ্নিত করেছে। আপনার সহযোগীতার মনোভাবের জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ।
বিজয় ৫২ সেটআপ করে টাইপ করার জন্য একটা কী চাপ দিলে ৪০ থেকে ৫০ টা অক্ষর অটোমেটিক টাইপ হয়ে যায়। ঘটনা কি তা বুঝলাম না। উল্লেখ্য যে আমি ভিস্তা সার্ভিক প্যাক ১ এবং অফিস ২০০৭ এ এটা ট্রাই করেছি।

ভাইরাস ভাইরাস !!! শেষ পর্যন্ত ভাইরাস সহ ফাইল !!!! আর জব্বার কাক্কু !!!

Level 0

মাথাব্যাথা বন্ধ !!!

কপিরাইট আইন কী বলে জানি না। ফাইল শেয়ার করতে পারি।
আর ইস্নিপস থেকে ডাউনলোড করুন
http://www.esnips.com/doc/06187643-c715-47ad-93dc-2800b658cc14/Bijoy52

ভাই জব্বার কাক্কুর সফটওয়ার টাকা দিয়ে কেনার অনেকেই আছেন। আমাদের মত ছাত্রদের অন্তত ফ্রিটা ব্যবহার করতে দিন!

Level 0

Use Free & Open Source Software (FOSS),
Use UNICODE.

Avoid PROPRIETORY software [email protected]##@!!

বিজয় বায়ান্ন দিয়ে মাইক্রোসফট অফিস ছাড়া অন্য কোন খানে টাইপ করা যায় না। অর্থাৎ, আপনাকে ফোরামে যা লিখবেন তা ওয়ার্ডে কম্পোজ করে নিতে হবে। ফন্টগুলো সম্ভবত অন্যান্য ইউনিকোডের স্ট্যান্ডার্ড কনফর্ম করে না, কারণ কিছু কিছু যুক্তাক্ষর টাইপ করা যায় না। তার উপর এটি অফিস ২০০৭ সমর্থন করে না।

তবে সফটওয়্যারটির দাম মাত্র ১০০ টাকা (১.৫ ডলার), এটি পাইরেসি না করে বরং দোকান থেকে একটা সিডি কিনে নেওয়াটাই সমীচীন বাংলাদেশের অধিবাসীদের।

Level 0

আমি সাইটটিতে ঢুকতেই পারিনি, বার বার পেজ ইরোর দেখায়। সবাই যা বলেছে তা সত্যি না-কি। ঢোকার আগেই বাধা তার চেয়ে না ঢোকাই ভাল। কি বলেন বন্ধুরা

ভাই কপিরাইট আইন সম্পর্কে জানতে চাই।

বিজয় বায়ান্নো পুরাই বাগ। একটা অক্ষর লেখলে “ািবৃতকবতৃসরতকৃাহচগহংকবদগকংযাদংবরদমসংদাকংযদাতকংযদ,দেযংতাকদতংযকাদতংকাংাদ” উঠে!

তবে ফন্টগুলা কাজের! 🙂

বিজয় বায়ন্নো ভালৈ করেছে!
ভিস্তা তে আমার চলে নি কিন্তু উইন সেভেন এ চলেছে!
কিন্তু একটাই সমস্যা এক্সেল এ চলে না!
শুধু ওয়ার্ড এ কাজ করা যায়! 🙁

মোস্তফা কাগু জানতে পারলে সব কটার নামে থানা কেস করবে । কাগুর অনেক পুইস আছে কিন্তু।

বিজয় কারও লাগলে এখানে যোগ যোগ করেন [email protected]

বিজয় বায়ান্ন এর ইউনিকোড ফন্টগুলি কি আমি অভ্র দিয়ে কোন লেখায় ব্যবহার করতে পারবো কোন প্রকার কনভার্টার ছাড়া ? ফন্টগুলি কোথায় পেতে পারি ?