ADs by Techtunes ADs
ADs by Techtunes ADs

সেরা ৪টি Android ফটো এডিটিং অ্যাপস

টিউন বিভাগ অ্যান্ড্রয়েড Apps
প্রকাশিত
জোসস করেছেন

বর্তমানে স্মার্টফোন ব্যবহার বাড়ার পাশাপাশি মোবাইল ফটোগ্রাফীর চর্চাও বেড়েছে। প্রতিনিয়ত মোবাইল ফোনে যুক্ত হচ্ছে স্মার্ট ফিচার এবং পাওয়ারফুল ক্যামেরা। অনেক মোবাইল ক্যামেরা আপনাকে অটো এনহান্স সুবিধা দিয়ে থাকে যেখানে আপনার হাতে নিয়ন্ত্রন থাকে খুব কম পরিমানে, তবে কিছু আপ আছে জেগুলো ব্যবহার করে সাধারন ছবি গুলোতে প্রফেশনাল লুক দিতে পারেন।
এই ভিডিওতে দেখে নিতে পারেন-

ADs by Techtunes ADs

আজ আমরা জানব আমার ব্যাবহ্রত ৪টি বেস্ট আন্ড্রয়েড আপ সম্পর্কে জেগুলো ব্যবহার করে আপনার ছবিগুলোতে নিয়ে আসতে পারেন কিছুটা আলাদা লুক।

কম্পিউটারে ছবি এডিটিং বলতে আমরা ফটোশপকেই বুঝি, তবে অ্যান্ড্রয়েড প্লাটফর্মেও কিন্তু ফটোশপ পিছিয়ে নেই। 4নাম্বারে রাখব আমি Adobe Photoshop Express কে। Appটির Interface বেশ সহজ এবং সাজান গুছান। আপনার গালারি থেকে ছবি ওপেন করলেই পাচ্ছেন কিছু কুল লুকিং প্রিসেট যেগুলো  এক ক্লিকে Apply করে নিতে পারবেন তাছাড়া ক্রপ অপশনে গিয়ে ইচ্ছে মতন সাইজে ক্রপ, রোটেড কিনবা ট্রান্সফর্ম করে নিতে পারবেন। এডজাস্টমেন্ট থেকে Sharpness, highlights, shadow, tempareture, vibrance.what not. সব কিছুই এডজাস্ট করে নিতে পারবেন। এছাড়াও Blemishes, red eye reduction এবং Text যুক্ত করার অপশন থাকছে অ্যাপটিতে। আরেকটি হিডেন ফিচার বলে দেই, আপনার যদি DSLR থাকে, সরাসরি raw ইমেইজ এডিট করতে পারবেন Adobe Photoshop Express দিয়ে।

৩ নাম্বারে  রাখব আমি Lens Distortion অ্যাপটিকে। এটি মূলত এডিটিং অ্যাপ নয়, একটি এডঅন আপ। ছবি ওপেন করলেই আপনি তার নিচে কিছু অপশন পাবেন যার মাধ্যমে লাইট, ফ্লেয়ার, রেইন কিনবা স্নো ইফেক্ট যুক্ত করতে পারবেন কোন complexity ছাড়াই। Experiment করে দেখতে পারেন, আশা করি ভাল লাগবে।

আমার পছন্দের তালিকায় ২য় নাম্বারে  রয়েছে Adobe Corporation এর ই আর একটি অ্যাপ, Lightroom. অ্যাপটিতে এডিটিং ফিচারের পাশাপাশি রয়েছে নিজেসো Camera। আপনি ক্যামেরা দিয়ে ছবি তুলে কিংবা মোবাইল Gallry থেকে ছবি এডিট করতে পারবেন। লাইটরুম মোবাইল অ্যাপ আমি প্রথম ব্যবহার করতে গিয়ে একটু অবাক হয়েছিলাম কেননা আমার কাছে মনে হচ্ছিল Adobe তাদের Computer অ্যাপ ভার্সনের সকল ফিচার এই মোবাইল অ্যাপে দিয়ে দিয়েছে। এটিতে বেসিক স্লাইডার এডজাস্টমেন্টের পাশাপাশি পাচ্ছেন কার্ভ এডজাস্টমেন্ট সুবিধা। Color tab এর ফিচার গুলো এই অ্যাপটিকে করেছে অন্যান্য অ্যাপ থেকে আলাদা। Saturation, Vibrance এর পাশাপাশি আলাদা আলাদা ভাবে আপনি কালার গুলোর ইন্টেনসিটি, লাইটনেস কিংবা কালারটিই পরিবর্তন করতে পারবেন। মোটকথা পিসি ভার্সনের মোটামুটি সকল ফিচার পাবেন এখানে। তবে raw ছবি এডিট, সিলেক্টিভ এডজাস্টমেন্ট, ব্যাকআপ ইত্যাদি সুবিধা পেতে হলে আপনাকে Monthly ৪০০টাকা করে পে করতে হবে।

 

আমার পছন্দের তালিকায় ১ নাম্বারে রাখব গুগলের Snapseed অ্যাপটিকে। On the go তে ছবি এডিট করার জন্য যে সকল সুবিধা আপনার দরকার তার সবই আছে এই অ্যাপটিতে, আর এ সবকিছু পাচ্ছেন আপনি একদম ফ্রিতে। মোটকথা Snapseed হোলো all in one Android image Editing app. Looks এর আন্ডারে পাচ্ছেন বিভিন্ন Preset, যেখানে আপনি প্রবর্তিতে নিজেসহ Preset অ্যাড করে নিতে পারবেন। টুলস এর আন্ডারে থাকছে আপনার ছবিকে প্রানবন্ত করার সকল টুলস। Tune Image থেকে ছবির bassic adjustment যেমন, Highlight, shadow, tempereture, saturation ইত্যাদি Adjust করে নিতে পারবেন। Lightroom এর মত এই অ্যাপটিতে ও পাচ্ছেন এডাস্টমেন্ট লেয়ার। Selective adjustment করতে পারবেন Selective টুলস থেকে। Brush Tools এ পাচ্ছেন Doge & burn, Exposure, Temperature & Saturation Brush. Healing tools ব্যবহার করে ফেসের স্পট রিমুভ করে নিতে পারবেন খুব সহজে। এছাড়াও থাকছে আরো অনেক ফিচার যা এই একটি ভিডিওতে দেখান সম্ভব নয়।

আমার যদি কোন ছবি মোবাইলে এডিট করার দরকার হয় আমি মুলত প্রয়োজন অনুযায়ী এই ৪টি অ্যাপই ব্যবহার করি। তবে আমাকে যেকোন একটি অ্যাপ বেছে নিতে বলা হলে আমি Snapseed কে বেছে নেব।

তো আপনার Fevorite অ্যাপ কোনটি comment boxএ জানাতে পারেন।

ADs by Techtunes ADs

ADs by Techtunes ADs
Level 2

আমি জেমস্ প্রিন্স। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 8 বছর 11 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 46 টি টিউন ও 50 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 5 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস