ডার্ক এবং ডিপ ওয়েবসাইট এখন আপনার হাতের মুঠোই ভয়ংকর রেড রুমের কিলারদের আস্তানা যেখানে আপনি যা চাইবেন তাই পাবেন

ডার্ক এবং ডিপ ওয়েবসাইটের একটি জনপ্রিয় এবং ভয়ানক জায়গা হলো রেড রুম(লাল ঘর বা রক্ত রঞ্জিত ঘর)। মূলত এটি একটি ভার্চুয়াল পেশাদার খুনীর আখড়া যেখানে খুনীরা একটি নির্দিষ্ট টাকার বিনিময়ে আপনার শত্রুকে খুন করার চুক্তি নিয়ে থাকেন। মূলত এটা একটা সোস্যাল নেটওয়ার্কিং সিস্টেম যেখানে থাকেন একজন এডমিন(যিনি Killer নামে পরিচিত) এবং তার আওতায় থাকে একাধিক ভাড়াটে খুনী তথা Hair Killer এরা যুক্ত থাকে এই ভার্চুয়াল নেটওয়ার্কের সাথে তাদের বলা হয় HK।

আপনি সরাসরি HK এর সাথে যোগাযোগ করতে পারেন না বরং আপনাকে চুক্তি বা কমিটমেন্ট করতে হয় ঐসকল HK এর Don তথা সরাসরি Killer এর সাথে। সাধারনত পেমেন্ট সিস্টেম থাকে এনক্রিপটেড কারেন্সি তথা বিটয়কেন এর মাধ্যমে(কেননা এই বিটকয়েনের আদান প্রদান থাকে সুরক্ষিত হ্যাশ সলভেন্টের মাধ্যমে) আবার রিজিওনাল সিস্টেমেও Killer এর সাথে কমিটমেন্ট করে বিভিন্ন গেটওয়্যেতে পেমেন্ট করতে পারেন।

এটা কি লিগ্যাল?

অবশ্যই এটা ইলিগ্যাল কিন্তু সত্যটা হলো এই কাজে না তো পুলিশ কিংবা না তো প্রশাসন কোন নজরদারী করতে পারেন না কেননা তারা কেবলমাত্র সারফেসে ওয়েবসাইট এক্সেস করারই ক্ষমতা রেখে থাকেন। আশ্চর্য কথা হলো স্বয়ং FBI পর্যন্ত এখানে পৌছাতে পারেনা!

কিভাবে মার্ডার হয়?

মূলত এখানে পুরো ক্রাইমটাই হয় অ্যানোনিমাস যেখানে আপনার টাকার বিনিময়ে জিরো টলারেন্সে মার্ডার করা হয়; এখানে ভিক্টিম যেমনি অচেনা তেমনি কিলার নিজেও অচেনা থাকে যার মাঝখানে থাকেন আপনি নিজে আর সবকিছুর মূল হলো টাকার মূল্য!

কিলার এর হাত হতে আপনি কি নিরাপদ?

যদিও পুলিশ কিংবা প্রশাসনের হাতে কোন প্রুফই থাকেনা তাই আপনি কিলারকে কোন অর্ডার দিলেও তা থাকে এনক্রিপ্ট করা অর্থাৎ পুলিশের হাত হতেও আপনি নিরাপদ থাকেন আর কিলিং মিশন থাকে সাজানো যেমনি এক্সিডেন্ট কিংবা সুইসাইডাল তাই আপনিও থাকেন সন্দেহের উর্দ্ধে তথা আপনি নন- সাসপেক্টেড পারসোন। এমনকি কিছু কিছু সময় শর্তস্বাপেক্ষে বডিও হাইড করে দেয় কিলার যাকো সোজা ভাষার বলে গুম!

যদিও কিলার আপনারা আইপি এড্রেস ট্রাক করে রাখে তাই আপনি যদি কিলার এর চুক্তির বাইরে যেমন কমিটমেন্টের বাইরে পেমেন্ট না করেন তবে তারা আপনাকেও ট্রাক করে সনাক্ত করতে পারে তাই এক্ষেত্রে আপনার পালানোর পথ নেই; তবে যেহেতু এটা তাদের প্রফোশন তাই টাকার বিষয়ে আপনি স্ট্রিট থাকলে আপনিও হয়ে যান ভয়ংকর কেউ একজন অ্যানোনিমাস ক্রাইম মাস্টার!

Killer কি টাকা নিয়ে কাজ করে?

যেহেতু এটা তাদের প্রফোশন তাই তারা তাদের কাজের বিষয়ে সিনসিয়ার আর তারা টাকা পেলে ৭/১০ দিনের ভেতর কাজ করে এবং কাজ শেষে ভিক্টিম মার্ডার এর পিক এবং ডকুমেন্ট পাঠিয়ে দেয়।

মূলত এই সব কাজই হয় অনিয়ন ওয়েবসাইটে তবে তাদের একটি সারফেস এড্রেস হলো Red Room Killer যেখানে আপনি ফ্রি একাউন্ট খুলে(নিজের ইমেইল দিয়ে) একজন মেম্বার হয়ে Killer এর সাথে কমিটমেন্ট করতে পারেন(সাধারন ফেসুকের মতোনই সাইনআপ প্রসেস)। যদিও এটা সারফেস তবুও এটার সাথেই যুক্ত আছে স্মার্ট টেকনোলজি আর ভয়ংকর সূত্র আছে ডার্ক এবং ডিপ সাইটের সাথে।

জানি না এটা প্রকাশ করা ঠিক হবে কিনা তবুও এই Red Room এর সিক্রেট এপ্লিকেশনটির(অ্যাপস) ডাউনলোড লিংক দিলাম→ Red Room

আপনার নীতি নৈতিকতা আপনার কাছেই!

Level 1

আমি মিনহার মহসিন রোটেটিং রটোর। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 3 বছর যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 31 টি টিউন ও 15 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 18 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 1 টিউনারকে ফলো করি।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস